ঢাকা, ২৫ মে, ২০২০
সর্বশেষ:
সেহরি ও ইফতারের সময় সূচি : ঢাকায় প্রথম রোজার সেহরির শেষ সময় রাত ৪টা ৫ মিনিটে আর ইফতার হবে সন্ধ্যা ৬টা ২৮ মিনিটে। আইইডিসিআর এর করোনা কন্ট্রোল রুম (০১৭০০৭০৫৭৩৭) অথবা হটলাইন নম্বরে (০১৯৩৭১১০০১১, ০১৯৩৭০০০০১১, ০১৯২৭৭১১৭৮৪, ০১৯২৭৭১১৭৮৫, ০১৯৪৪৩৩৩২২২, ০১৫৫০০৬৪৯০১–০৫) যোগাযোগ করা যাবে। এ ছাড়া করোনাসংক্রান্ত তথ্য জানতে বা সহযোগিতা পেতে স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ এবং ৩৩৩ নম্বরে ফোন করা যাবে। অনলাইনে করোনা নিয়ে যোগাযোগ করতে আইইডিসিআরের ই-মেইল [email protected] এবং ফেসবুক পেজে (Iedcr,COVID19 Control Room) যোগাযোগ করা যাবে। জরুরি প্রয়োজনে কল করুন- ৯৯৯

করোনা জরিপ :  মৃতের সংখ্যা ৫৯ হাজার ছাড়ালো

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১:৪৭, ৪ এপ্রিল ২০২০  

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে ইউরোপের প্রায় সব দেশ লকডাউন।

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে ইউরোপের প্রায় সব দেশ লকডাউন।


প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা ৫৯ হাজার ছাড়িয়েছে। আন্তর্জাতিক জরিপ পর্যালোচনাকারী সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটার এ তথ্য জানিয়েছে।

সংস্থাটির ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তথ্যানুযায়ী বর্তমানে বিশ্বে করোনাভাইরাসে প্রাণ হারিয়েছেন ৫৯ হাজার ১৫৯ জন। এছাড়া আক্রান্ত হয়েছেন ১০ লাখ ৯৮ হাজার ৩৯০জন। এর মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২ লাখ ২৮ হাজার ৯২৩ জন। 

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনে বৈশ্বিক এ মহামারির প্রাদুর্ভাব শুরু হলেও ভাইরাসটিতে সবচেয়ে বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে ইতালিতে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ১৪ হাজারের বেশি লোক মারা গেছেন, আর আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখেরও বেশি মানুষ। 

মৃত্যুতে ইতালির পরই রয়েছে স্পেনের অবস্থান। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ১০ হাজার ৯৩৫ জন মারা গেছেন, আর আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ১৭ হাজার ৭১০ জন।

তবে করোনায় আক্রান্তের দিক থেকে বিশ্বের সব দেশকে ছাড়িয়ে গেছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে বর্তমানে ২ লাখ ৪৫ হাজার ৩৮০ জন আক্রান্ত হয়েছে। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৬ হাজার ৯৫ জনে।

করোনার উৎপত্তিস্থল চীনে আক্রান্ত হয়েছেন ৮১ হাজার ৬২০ জন, মারা গেছেন ৩ হাজার ৩২২ জন।

ইউরোপের আরেক দেশ ফ্রান্সে এ পর্যন্ত ৫৯ হাজার ১০৫ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এর আগে গেল ২৪ ঘণ্টায় সেখানে প্রাণ হারিয়েছেন ১ হাজার ৩৫৫ জন, যা ফ্রান্সে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পর একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু। দেশটিতে করোনায় মোট মৃত্যু হয়েছে ৫ হাজার ৩৮৭ জনের।

এছাড়া জার্মানিতেও প্রতিদিন বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ৮৫ হাজার ৬৩ জন, আর মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ১১১ জনের।

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে ইউরোপের প্রায় সব দেশ লকডাউন। যুক্তরাষ্ট্রের অর্ধেকের বেশি মানুষ ঘরবন্দী। এ রকম লকডাউন চলছে এশিয়া ও আফ্রিকাসহ অন্যান্য মহাদেশেও।

এশিয়ার মধ্যে ইরানের অবস্থা সবচেয়ে খারাপ। প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ১২৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩ হাজার ২৯৪ জনে, আর মোট আক্রান্ত হয়েছে ৫৩ হাজার ১৮৩ জন।

ভারতে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ২ হাজার ৫৬৭ জনে দাঁড়িয়েছে, মারা গেছেন ৭২ জন। পাকিস্তানে মৃতের সংখ্যা ৩৫ জন, আক্রান্ত ২ হাজার ৪৫০ জন।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) তথ্য মতে- দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৬১ জন। মারা গেছেন ছয় জন। চিকিৎসাধীন ২৯ জন। আর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২৬ জন।

বাংলাদেশে প্রথম রোগী ৮ মার্চ শনাক্ত হন। প্রথম দিকে যারা আক্রান্ত হয়েছেন তারা বেশির ভাগই ইতালিফেরত।

নিউজওয়ান২৪.কম/এমজেড

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত