ঢাকা, ২৯ অক্টোবর, ২০২০
সর্বশেষ:
আইইডিসিআর এর করোনা কন্ট্রোল রুম (০১৭০০৭০৫৭৩৭) অথবা হটলাইন নম্বরে (০১৯৩৭১১০০১১, ০১৯৩৭০০০০১১, ০১৯২৭৭১১৭৮৪, ০১৯২৭৭১১৭৮৫, ০১৯৪৪৩৩৩২২২, ০১৫৫০০৬৪৯০১–০৫) যোগাযোগ করা যাবে। এ ছাড়া করোনাসংক্রান্ত তথ্য জানতে বা সহযোগিতা পেতে স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ এবং ৩৩৩ নম্বরে ফোন করা যাবে। অনলাইনে করোনা নিয়ে যোগাযোগ করতে আইইডিসিআরের ই-মেইল [email protected] এবং ফেসবুক পেজে (Iedcr,COVID19 Control Room) যোগাযোগ করা যাবে। জরুরি প্রয়োজনে কল করুন- ৯৯৯

আসল নকল থেকে সাবধান: ভয়াবহ বিপদ ঘটে যেতে পারে!

নিউজওয়ান২৪.কম ডেস্ক

প্রকাশিত: ২১:২৯, ২৩ অক্টোবর ২০১৮  

বাঁয়ে তসলিমা নাসরিনকে সংযুক্ত ছবিটি এডিট করা নকল এবং ডানের ছবিটি আসল

বাঁয়ে তসলিমা নাসরিনকে সংযুক্ত ছবিটি এডিট করা নকল এবং ডানের ছবিটি আসল


একই রকম দেখতে, তবে একটু পার্থক্য রয়েছে- এমন দুইটি ছবির গল্প এটি।  তবে এখানে প্রথম যে ছবিটি দেখছেন তার প্রধান চরিত্রগুলো আপাত কেউ কারও বিরোধী নন। দিনতারিখ আর স্থান উল্লেখ ছাড়া এই ছবিটি এখন সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার করছেন কেউ কেউ। ছবির প্রধান মুখগুলোর মাঝে দেখা যাচ্ছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নিয়ে হালে আলোচনায় থাকা গণফোরাম নেতা ড. কামাল হোসেন, একই ফ্রন্টে থাকা জাসদ নেতা আসম রব, এবং রবের ডানে রয়েছেন হালে ‘ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন কাণ্ড’ সূত্রে সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টিকে ‘ভীষণরকম চরিত্রহীন’ বলা স্বেচ্ছা নির্বাসিত লেখক তসলিমা নাসরিন!

এডিট করা নকল ছবি
নকল ছবি

কিন্তু অনেকেই হয়তো চমকে যাবেন এটা জানার পর যে, এই ছবিটি আসল নয়। এটায় ফটোশপের কারসাজি করা হয়েছে। যেখানে তসলিমা নাসরিনকে দেখানে হয়েছে শাড়ি পরিহিত অবস্থায়, সেটা আসলে তিনি নন। আসল বা মূল ছবিতে তসলিমার স্থলে ছিলেন তানিয়া রব। এটি দ্বিতীয় ছবিতে স্পষ্ট। এতে দেখা যাচ্ছে শাড়ি পরিহিত তানিয়া রব, তার বাঁ পাশে আসম রব এবং রব সাহেবের বাঁ পাশে ড. কামাল হোসেন। এই ছবি গত ১৩ অক্টোবর দৈনিক ভোরের কাগজে ছাপা হয়েছে ‘অবশেষে বি. চৌধুরী ছাড়াই জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট’ শিরোনামের সংবাদের সঙ্গে।

আসল ছবিআসল ছবি

এই ছবি নিয়ে যারাই কারসাজি করে থাকুন না কেন- বিষয়টি চক্ষুষ্মান-বিবেকবান মানুষজনের চোখে ধরা পড়ে গেছে। তবে এ ধরনের সব অপকর্মই কী ধরা পড়ে? এর আগে পবিত্র কাবা শরীফের গিলাফ হাতে দাঁড়ানো মসজিদুল হারামের ইমাম ও অন্যান্য বুজুর্গ আলেমদের ছবি দিয়ে একটি পক্ষ প্রচার চালাতে চেয়েছিল যে দেলোয়ার হোসেন সাঈদীর মুক্তি দাবি করে তারা মানববন্ধন করেছেন। সেই মিথ্যাও ধরা পড়ে গেছে। তাই, সামনে নির্বাচনকে ঘিরে এবং অন্যান্য প্রসঙ্গে এ ধরনের ডিজিটাল জালিয়াতি থেকে সবাইকে সাবধান থাকতে হবে। 

অসম্ভব কোনো কিছু দেখেই হৈ চৈ শুরু করে দেওয়াটা ঠিক হবে না। সাইবার অপরাধীরা ছবি বা তথ্য বিকৃত করে যে কোনো ভয়াবহ পরিস্থিতির সৃষ্টি করতে চাইতে পারে। সেক্ষেত্রে সরকারসহ সব পক্ষকে চূড়ান্ত সাবধান থাকতে হবে বলে মনে করছেন অভিজ্ঞ মহল।

নিউজওয়ান২৪/এমএস

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত