ঢাকা, ১৩ আগস্ট, ২০২০
সর্বশেষ:
সেহরি ও ইফতারের সময় সূচি : ঢাকায় প্রথম রোজার সেহরির শেষ সময় রাত ৪টা ৫ মিনিটে আর ইফতার হবে সন্ধ্যা ৬টা ২৮ মিনিটে। আইইডিসিআর এর করোনা কন্ট্রোল রুম (০১৭০০৭০৫৭৩৭) অথবা হটলাইন নম্বরে (০১৯৩৭১১০০১১, ০১৯৩৭০০০০১১, ০১৯২৭৭১১৭৮৪, ০১৯২৭৭১১৭৮৫, ০১৯৪৪৩৩৩২২২, ০১৫৫০০৬৪৯০১–০৫) যোগাযোগ করা যাবে। এ ছাড়া করোনাসংক্রান্ত তথ্য জানতে বা সহযোগিতা পেতে স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ এবং ৩৩৩ নম্বরে ফোন করা যাবে। অনলাইনে করোনা নিয়ে যোগাযোগ করতে আইইডিসিআরের ই-মেইল [email protected] এবং ফেসবুক পেজে (Iedcr,COVID19 Control Room) যোগাযোগ করা যাবে। জরুরি প্রয়োজনে কল করুন- ৯৯৯

আজ বৃহস্পতিবার, ২৮ নভেম্বর: রাজধানীতে যা যা বন্ধ এবং খোলা

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ০৯:০৩, ২৮ নভেম্বর ২০১৯  

আহসান মঞ্জিল। পুরান ঢাকার ইসলামপুরের কুমারটুলী এলাকায় বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে অবস্থিত।- ফাইল ফটো

আহসান মঞ্জিল। পুরান ঢাকার ইসলামপুরের কুমারটুলী এলাকায় বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে অবস্থিত।- ফাইল ফটো

কর্মব্যস্ত নগরে ছোটাছুটির গন্তব্য অনেকটা নির্ধারিত। শপিংমল, পার্ক ও বিনোদন কেন্দ্রগুলোতেই থাকে সবার ঝোঁক। তবে এগুলোরও রয়েছে ছুটি বা বন্ধের ঝামেলা। 

আজ আপনি ফ্রি থাকলেও পছন্দের জায়গাটি কি খোলা আছে? এমন জটলা প্রতিনিয়তই সামনে আসে। 

তো চলুন জেনে নিই রাজধানীতে আজ বৃহস্পতিবার যে সব দর্শনীয় স্থান, এলাকা এবং মার্কেটগুলো বন্ধ এবং খোলা থাকবে থাকবে। আর একটি কথা, এখানে শুধু বন্ধের তালিকা দেয়া হলো। আর বাকি সব খোলা।

বন্ধ থাকবে যে সব এলাকা:

মোহাম্মাদপুর, আদাবর, শ্যামলী, গাবতলী, মিরপুর স্টেডিয়াম, চিড়িয়াখানা, টেকনিক্যাল, কল্যাণপুর, আসাদগেট, ইস্কাটন, মগবাজার, বেইলি রোড, সিদ্ধেশ্বরী, মালিবাগের একাংশ, শাজাহানপুর, শান্তিনগর, শহীদবাগ, শান্তিবাগ, ফকিরেরপুল, পল্টন, মতিঝিল, টিকাটুলি, আরামবাগ, কাকরাইল, বিজয়নগর, সেগুনবাগিচা, হাইকোর্ট ভবন এলাকা, রমনা শিশু পার্ক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা, নিউমার্কেট।

বন্ধ থাকবে যে সব মার্কেট:

মোহাম্মাদপুর টাউন হল মার্কেট, কৃষি মার্কেট, আড়ং, বিআরটিসি মার্কেট, শ্যামলী হল মার্কেট, মুক্তিযোদ্ধা সুপার মার্কেট, মাজার কর্পোরেট মার্কেট, মুক্ত বাংলা শপিং কমপ্লেক্স, শাহ্ আলী সুপার মার্কেট, মিরপুর স্টেডিয়াম মার্কেট, মৌচাক মার্কেট, আনারকলি মার্কেট, আয়েশা শপিং কমপ্লেক্স, কর্নফুলি গার্ডেন সিটি, কনকর্ড টুইন টাওয়ার, ইস্টার্ন প্লাস, সিটি হার্ট, জোনাকি সুপার মার্কেট, গাজী ভবন, পল্টন সুপার মার্কেট, স্টেডিয়াম মার্কেট-১, এবং ২, গুলিস্থান কমপ্লেক্স, রমনা ভবন, খদ্দর মার্কেট, পীর ইয়ামেনি মার্কেট, বাইতুল মুকাররম মার্কেট, আজিজ কোওপারেটিভ মার্কেট, সাকুরা মার্কেট।

বন্ধ থাকবে যে সব দর্শনীয় স্থান:

বিজ্ঞান জাদুঘর: ঢাকার আগারগাঁও এলাকার জ্ঞান-বিজ্ঞানের বিভিন্ন বিষয়ভিত্তিক উপাদান নিয়ে গঠিত হয়েছে বিজ্ঞান জাদুঘর। সপ্তাহের প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত সকলের জন্য খোলা থাকে। শুধু শুক্রবার দিন বিকাল ৩টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত খোলা থাকে। বিজ্ঞান জাদুঘরের সাপ্তাহিত বন্ধের দিন হচ্ছে বৃহস্পতিবার।

সামরিক জাদুঘর: এটি বিজয় সরণিতে অবস্থিত। প্রতিদিন সকাল ১০-৩০মি: থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত খোলা থাকে। বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার সাপ্তাহিক বন্ধ থাকে।

আহসান মঞ্জিল: বুড়িগঙ্গার তীরে অবস্থিত আহসান মঞ্জিল এক ঐহিতাসিক ভবন। এর সঙ্গে জড়িয়ে আছে ইতিহাসের স্মৃতি। প্রাচীন সভ্যতার ধারক ও বাহক হিসেবে আহসান মঞ্জিল জাদুঘরের গুরুত্ব অপরিসীম। আহসান মঞ্জিল এক সময় ব্রিটিশ ভারতীয় উপাধিপ্রাপ্ত ঢাকার নবাবদের বাসগৃহ ছিল। বিল্ডিংটি স্থাপত্যে দৃষ্টিনন্দন। যে কোনো মানুষের হৃদয়কে আকর্ষণ করে এর স্থাপনা কৌশল, জাদুঘরটির প্রথমতলা ও দ্বিতীয়তলায় রয়েছে নবাবদের ঐতিহ্যপূর্ণ জীবনযাত্রার চিত্র। জাদুঘরটি সর্বমোট ২টি গ্যালারিতে ভাগ করে বিভিন্ন বিষয়কে উপস্থাপন করা হয়েছে। সাপ্তাহিক বন্ধ বৃহস্পতিবার, শুক্রবার বিকেল ৩.০০ থেকে সন্ধ্যা ৭.০০ পর্যন্ত। শনিবার-বুধবার সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৪.৩০টা পর্যন্ত।

বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর: রাজধানী ঢাকা শহরের দর্শনীয় স্থানের মধ্যে জাতীয় জাদুঘরটি অন্যতম। ঢাকার প্রাণকেন্দ্র শাহবাগে এটি অবস্থিত। পিজি হাসপাতালের উল্টোদিকে এবং জাতীয় গ্রন্থাগারের পাশে মনোরম পরিবেশে আধুনিক কারুকার্য ও নকশায় নির্মিত এই জাদুঘরটি অগণিত মানুষের হৃদয় জয় করেছে। পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন এবং সবুজ বাগানে ঘেরা চত্বরটি সহজেই দর্শকের হৃদয়কে আকর্ষন করে। এই জাদুঘর একবার মন দিয়ে দেখলে বাংলাদেশ সম্পর্কে একটি স্বচ্ছ ধারণা পাওয়া যায়। বৃহস্পতিবার সাপ্তাহিক ছুটির দিন ছাড়া জাতীয় জাদুঘর গ্যালারি শনিবার থেকে বুধবার পর্যন্ত সকাল ১২টা ৩০ মিনিট হতে বিকেল ৪টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত খোলা থাকে এবং শুক্রবার বিকেল ৩টা ৩০ মিনিট থেকে সন্ধা ৭ টা পর্যন্ত খোলা থাকে। জাতীয় জাদুঘরে প্রবেশের জন্য জনপ্রতি দশ টাকা ফি নেয়া হয়। তিন বছরের নিচের বয়সের শিশুদের কোনো ফি প্রয়োজন হয় না। জাদুঘরের ভিতরে প্রতি তলায় যেসব জিনিস আছে- সেগুলো সম্পর্কে নির্দেশিকা দেয়া রয়েছে। এই নির্দেশিকা অনুসারে যে কোনো পর্যটক জাদুঘর প্রদর্শন করতে পারবেন।

নিউজওয়ান২৪.কম/রাণী

আরও পড়ুন
রাজধানী বিভাগের সর্বাধিক পঠিত