ঢাকা, ০৩ এপ্রিল, ২০২০
সর্বশেষ:
জ্বর, কাশি, শ্বাসকষ্ট, মাংসপেশি ও গাঁটে ব্যথাসহ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার উপসর্গ দেখা দিলে আইইডিসিআরের সঙ্গে যোগাযোগ করুন। আইইডিসিআরের হটলাইন নম্বর: ০১৯২৭৭১১৭৮৪, ০১৯২৭৭১১৭৮৫, ০১৯৩৭০০০০১১, ০১৯৩৭১১০০১১ জরুরি প্রয়োজনে কল করুন- ৯৯৯

‘মেড ইন বাংলাদেশ’ ট্যাগে ‘গ্যালাক্সি নোট ১০ প্লাস’ 

মোবাইল-পিসি-টেক ডেস্ক

প্রকাশিত: ১০:৪৯, ৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

গ্যালাক্সি নোট ১০ প্লাস- ছবি: সংগৃহীত

গ্যালাক্সি নোট ১০ প্লাস- ছবি: সংগৃহীত


দক্ষিণ কোরিয়ান প্রযুক্তি জায়ান্ট স্যামসাং ২০১৯-এ বাজারে ছেড়েছিল গ্যালাক্সি নোট ১০ প্লাস। অত্যাধুনিক ফিচার সম্বলিত ডিভাইসটি এখন তৈরি হচ্ছে বাংলাদেশে। 

গ্রাহকরা ‘মেড ইন বাংলাদেশ’ ট্যাগের গ্যালাক্সি নোট ১০ প্লাস এখন আমদানি করা ফোনের তুলনায় ৩১ হাজার টাকা কমে কিনতে পারছেন।

আরো পড়ুন>>> গুগল ম্যাপে পরিবর্তন

বাংলাদেশে মোবাইল হ্যান্ডসেট সংযোজিত হওয়ার দুই বছরের মধ্যে বাজারে এসেছে গ্যালাক্সি নোট ১০ প্লাস। দেশের মাটিতে সংযোজিত হওয়া ডিভাইসগুলোর মধ্যে এখন পর্যন্ত এটিই সবচেয়ে সফিস্টিকেটেড হ্যান্ডসেট। জানুয়ারিতে প্রথম লটে ‘মেড ইন বাংলাদেশ’ ট্যাগের এক হাজার পাঁচশ’টি গ্যালাক্সি নোট ১০ প্লাস বাজারে ছাড়া হয়েছিল।

বাংলাদেশে স্যামসাং ব্র্যান্ডের হ্যান্ডসেট তৈরি করা কোম্পানি ফেয়ার ইলেক্ট্রনিক্স লিমিটেডের প্রধান বিপণন কর্মকর্তা মোহাম্মদ মেসবাহ উদ্দিন বলেন, দেশে সংযোজিত এবং আমদানি করা ডিভাইসের মধ্যে গুণগত মানের ক্ষেত্রে কোনো পার্থক্য নেই। প্রথম লটের সব ফোনই বিক্রি হয়ে গেছে এবং কোনো ধরনেরর কোনো অভিযোগ আসেনি। এখন থেকে দেশে তৈরি ফোন নিয়মিত বাজারে থাকবে।

স্যামসাং মোবাইল বাংলাদেশের এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, অত্যাধুনিক ও অধিক শক্তিশালী ৭ ন্যানোমিটার (এনএম) এক্সিনোস ৯৮২৫ প্রসেসর, ১২ জিবি এলপিডিডিআর৪ এক্স র‍্যাম, ২৫৬ জিবি রম, ৪,৩০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি থাকছে ডিভাইসটিতে। এর ব্যাটারি মাত্র এক ঘণ্টায় পূর্ণ চার্জ হতে সক্ষম এবং কোয়াড রিয়ার ক্যামেরা সুবিধা থাকবে। এতে থাকবে উন্নত এস পেন সুবিধা।

গ্যালাক্সি নোট ১০ প্লাস ফোনটিতে ৬ দশমিক ৮ ইঞ্চি মাপের ডব্লিউকিউএইচডি প্লাস ডায়নামিক অ্যামোলেডের প্রায় বেজেলহীন ডিসপ্লে থাকবে। পাশাপাশি এর পেছনের কোয়াড ক্যামেরার ফিচারের মধ্যে ভিডিও স্ট্যাবিলাইজেশন, লাইভ ফোকাস অন ভিডিও, প্রফেশনাল গ্রেড ভিডিও এডিটিং সুবিধা থাকবে।

আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান ফেয়ার ইলেক্ট্রনিক্স এর আগে ফোনটি আমদানি করতো। বিভিন্ন দেশ থেকে আনা একেকটি ফোনের দাম পড়ত ১ লাখ ৪৪ হাজার টাকা। আর দেশে সংযোজনের পর এটির মূল্য দাঁড়াচ্ছে এক লাখ ১৩ হাজার টাকা।

নিউজওয়ান২৪.কম/এমজেড

মোবাইল-পিসি-টেক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত