ঢাকা, ১০ আগস্ট, ২০২০
সর্বশেষ:
সেহরি ও ইফতারের সময় সূচি : ঢাকায় প্রথম রোজার সেহরির শেষ সময় রাত ৪টা ৫ মিনিটে আর ইফতার হবে সন্ধ্যা ৬টা ২৮ মিনিটে। আইইডিসিআর এর করোনা কন্ট্রোল রুম (০১৭০০৭০৫৭৩৭) অথবা হটলাইন নম্বরে (০১৯৩৭১১০০১১, ০১৯৩৭০০০০১১, ০১৯২৭৭১১৭৮৪, ০১৯২৭৭১১৭৮৫, ০১৯৪৪৩৩৩২২২, ০১৫৫০০৬৪৯০১–০৫) যোগাযোগ করা যাবে। এ ছাড়া করোনাসংক্রান্ত তথ্য জানতে বা সহযোগিতা পেতে স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ এবং ৩৩৩ নম্বরে ফোন করা যাবে। অনলাইনে করোনা নিয়ে যোগাযোগ করতে আইইডিসিআরের ই-মেইল [email protected] এবং ফেসবুক পেজে (Iedcr,COVID19 Control Room) যোগাযোগ করা যাবে। জরুরি প্রয়োজনে কল করুন- ৯৯৯

বৈশাখী গয়না

লাইফস্টাইল ডেস্ক

প্রকাশিত: ১০:৪৭, ১৩ এপ্রিল ২০১৯  

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

বাঙালির প্রাণের উৎসব পয়লা বৈশাখ। সব ধর্ম, মত, বিশ্বাস নির্বিশেষে গোটা বাঙালি জাতিই এদিন মেতে ওঠে বৈশাখ উদযাপনে। তাই বাংলা নতুন বছরের শুরুর দিনটি নিয়ে সবার মধ্যেই থাকে বাড়তি উচ্ছ্বাস। নতুন বছর উদযাপনে একটি বড় অংশজুড়ে থাকে বৈশাখের সাজসজ্জা। 

ঐতিহ্যবাহী পোশাকের পাশাপাশি আধুনিক সাজসজ্জার সমন্বয় বৈশাখকে রাঙিয়ে তোলে নতুনরূপে। এদিন নারীরা সাধারণত লাল পাড়ে সাদা শাড়ি ও সালোয়ার-কামিজ পরেন। সবকিছুতেই থাকে রঙিন আবেশ। রঙিন পোশাকের সঙ্গে চাই মানানসই সঙ্গানুষঙ্গ। চাই বর্ণিল ও উজ্জ্বল গয়না; যা সাজে নিয়ে আসবে আভিজাত্য, ঐতিহ্য ও আধুনিকতার অপূর্ব সমন্বয়। 

পয়লা বৈশাখের সাজে পোশাকের সঙ্গে মানানসই গয়নার জন্য একটু ভেবে নেয়া যেতে পারে। কেননা, পোশাকের সঙ্গে গয়নার অসামঞ্জস্য অপ্রতিভ লাগতে পারে। 

বৈশাখে তরুণীদের মাটির গয়নার প্রতি ঝোঁক বেশি থাকে। তাঁত হোক বা সুতি, শাড়ির সঙ্গে লম্বা মাটির গয়না সাজে আনে বাঙালিয়ানা। মাটির দুল ও মালায় রয়েছে রঙের বৈচিত্র্য। মাটির দুলের দাম ৭০ থেকে ১৫০ টাকা আর মালাসহ দুলের দাম ১৫০ থেকে ২৫০ টাকার মধ্যে। তবে হাল ফ্যাশনে মেটাল এবং পিতলের গয়না আনে আভিজাত্য। ১৬ থেকে ৬৬, সব বয়সী নারী শাড়ি বা কামিজের সঙ্গে বেছে নিচ্ছেন মেটালের গয়না। পিতলের বালা, কানের দুল আর অক্সিডাইজড কানের দুলে রয়েছে বৈচিত্র্যের বাহার। পিতলের বালার দাম ১৫০ থেকে ৩৫০ টাকা, কানের দুল ১০০ থেকে ৪৮০ টাকা। ঐতিহ্যের সঙ্গে মিল রেখে আপনি পরতে পারেন দেশীয় ঘরানার কুন্দন, মিনাকারী টেকনিকের হাঁসুলি। সাধারণভাবে এর সঙ্গে থাকতে পারে দামি পাথর, রুবি ও রত্ন। পয়লা বৈশাখের মতো ঐতিহ্যবাহী উৎসবের জন্য পরিচ্ছদের সঙ্গে অত্যন্ত মানানসই অনুষঙ্গ। সাজের সঙ্গে মানানসই নানা আকারের হাঁসুলি পাওয়া যাচ্ছে।

ইদানীং শাড়ির পাশাপাশি নানা রকম টপসের সঙ্গে মানিয়ে তরুণীরা বেছে নিচ্ছেন কাঠ, বাঁশ, বেত ও নানা রকম বিডসের গয়না। ব্রাসো, বিডসের মালা ও খোঁপার কাঁটা, দুল বা গয়নার সেট ১৫০ থেকে ৫০০ টাকা, বাঁশের মালা ১৫০ থেকে ৩০০ টাকা পর্যন্ত। তাছাড়া কাঠের চুড়ি পাওয়া যাবে ৮০ থেকে ২৫০ টাকায়। কাঠের মালার দাম পড়বে ২০০ থেকে ৩২০ টাকা। আছে নানা আকারের হরেক রঙের পুঁতির গয়না। লম্বা, খাটো, দুই বা তিন ধাপের ইত্যাদি। পুঁতির দুলের দাম ২০০ থেকে ৪০০ টাকা। আর মালার দাম ৩০০ থেকে ৮০০ টাকা। বাঙালিয়ানা এবং নববর্ষের ঐতিহ্যের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে আছে কাচের চুড়ি। লাল ও সাদা-তো বটেই শাড়িতে ব্যবহৃত অন্যান্য রঙের সঙ্গে মিলিয়ে চুড়িও কিনছেন আধুনিক মেয়েরা। রুপা বা পাথর বসানো ধাতুর চুড়িও কিনছেন অনেকে। কাচের চুড়ি ৫০ থেকে ১৫০ টাকার মধ্যে পাবেন।
 
কোথায় পাবেন: মায়াসির, মাদুলী, যাত্রা, মান্ত্রা, কে ক্রাফট, রঙ বাংলাদেশ, পিরান, দেশাল, বিবিয়ানা, অঞ্জন’স-এ নববর্ষের গয়না পাবেন। পাবেন শিশু একাডেমির পাশে, চারুকলার বাইরে এবং নিউ মার্কেটে।

নিউজওযান২৪.কম/আ.রাফি

লাইফস্টাইল বিভাগের সর্বাধিক পঠিত