ঢাকা, ২০ নভেম্বর, ২০১৯
সর্বশেষ:
জরুরি প্রয়োজনে কল করুন- ৯৯৯ আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন ডিসেম্বরে হেল্পলাইন ১৬২৬৩ এ কল করলেই ডাক্তারের পরামর্শ

ছাত্রদলের ৭ সভাপতি প্রার্থী আপিলেও প্রার্থিতা ফিরে পাননি 

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১:৩০, ৩১ আগস্ট ২০১৯  

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের ষষ্ঠ কাউন্সিলে প্রার্থিতা ফিরে পেতে যারা আপিল করেছিলেন সেই আবেদনগুলো নিষ্পত্তি করেছে আপিল কমিটি। 

সভাপতি পদে যাচাই-বাছাই কমিটি যে সাত জনের প্রার্থিতা বাতিল করেছিল তাদের কারো আপিল গ্রহণযোগ্য হয়নি।

আপিল কমিটির পক্ষে মো. শামসুজ্জামান দুদু ও ড. আসাদুজ্জামান রিপন শুক্রবার রাতে এক যৌথ বিবৃতিতে এ তথ্য জানিয়েছেন।

বিবৃতিতে বলা হয়, সভাপতি পদে প্রার্থিতা বাতিল হয়েছিল, আল মেহেদী তালুকদার, আরাফাত বিল্লাহ খান, মো. আসাদুল আলম, মো. আজিম উদ্দিন মেরাজ, এস এ এম আমিরুল ইসলাম, জুয়েল মৃধা এবং ফজলুল হক নীরবের। যাচাই-বাছাই কমিটির বাতিল করা সাত জন সভাপতি প্রার্থীর আপিল আবেদন চূড়ান্ত বিশ্লেষণে গ্রহণযোগ্য মনে হয়নি, তাই তাদের প্রার্থিতা বাতিলের সিদ্ধান্ত বহাল রাখা হয়েছে।

অপরদিকে সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী হিসেবে যারা যাচাই-বাছাই কমিটির সিদ্ধান্তে বিবেচিত হয়নি, তারা হলেন-সাদিকুর রহমান, কে এম সাখাওয়াত হোসাইন, সিরাজুল ইসলাম, মো. ইমদাদুল হক মজুমদার, মোহাম্মদ জামিল হোসেন। কিন্তু আপিল কমিটির কাছে আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এ ৫ জন প্রার্থী তাদের প্রার্থিতা ফিরে পেয়েছেন।

এর বাইরে সভাপতি পদে মো. মামুন খান, সাধারণ সম্পাদক পদে মো. জুয়েল হাওলাদারের প্রার্থিতা আপিল কমিটি অনুমোদন করেনি বিধায় তাদের প্রার্থিতা আর বহাল নেই। এ ছাড়াও মোহাম্মদ ওমর ফারুকের সাধারণ সম্পাদকের পদে প্রার্থিতা যাচাই-বাছাই কমিটির সিদ্ধান্ত বহাল রেখে অনুমোদিত হয়নি।

আপিল কমিটি প্রতিটি বিষয়ে পুঙ্খানুপুঙ্খ বিচার-বিশ্লেষণ করে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক প্রার্থীদের আবেদন বিশ্লেষণ করে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। এখানে উল্লেখ করতে হয় প্রার্থীদের যোগ্যতার বিচারে নীতিমালার ভিত্তিতে ছাত্রত্ব বিবাহ সংক্রান্ত বিষয়ে অন্যান্য প্রসঙ্গে চুলচেরা বিশ্লেষণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। 

শনিবার প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ছিল। কিন্তু সেটা একদিন বাড়িয়ে ১ সেপ্টেম্বর বিকেল ৫টা পর্যন্ত করা হয়েছে।

নিউজওয়ান২৪.কম/এমজেড