ঢাকা, ১৪ আগস্ট, ২০২০
সর্বশেষ:
সেহরি ও ইফতারের সময় সূচি : ঢাকায় প্রথম রোজার সেহরির শেষ সময় রাত ৪টা ৫ মিনিটে আর ইফতার হবে সন্ধ্যা ৬টা ২৮ মিনিটে। আইইডিসিআর এর করোনা কন্ট্রোল রুম (০১৭০০৭০৫৭৩৭) অথবা হটলাইন নম্বরে (০১৯৩৭১১০০১১, ০১৯৩৭০০০০১১, ০১৯২৭৭১১৭৮৪, ০১৯২৭৭১১৭৮৫, ০১৯৪৪৩৩৩২২২, ০১৫৫০০৬৪৯০১–০৫) যোগাযোগ করা যাবে। এ ছাড়া করোনাসংক্রান্ত তথ্য জানতে বা সহযোগিতা পেতে স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ এবং ৩৩৩ নম্বরে ফোন করা যাবে। অনলাইনে করোনা নিয়ে যোগাযোগ করতে আইইডিসিআরের ই-মেইল [email protected] এবং ফেসবুক পেজে (Iedcr,COVID19 Control Room) যোগাযোগ করা যাবে। জরুরি প্রয়োজনে কল করুন- ৯৯৯

নুসরাতের ভাইয়ের আবেগঘন স্ট্যাটাস, প্রধানমন্ত্রীর কৃতজ্ঞতায় 

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১:০১, ১৩ আগস্ট ২০১৯  

নিহত নুসরাত জাহানের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা (ছবি: সংগৃহীত)

নিহত নুসরাত জাহানের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা (ছবি: সংগৃহীত)

ফেনীর সোনাগাজীতে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করা মাদরাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে হারিয়ে তার স্বজনদের মনে ঈদের আনন্দ নেই। কিছুতেই নুসরাতকে ভুলতে পারছেন না তার পরিবারের সদস্যরা।

ঈদুল আজহার দিন সোমবার (১২ আগস্ট) নুসরাত হত্যার বিচার নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে ফেসবুকে এক আবেগঘন স্ট্যাটাস দিয়েছে তার ছোট ভাই রাশেদুল হাসান রায়হান। 

নুসরাত জাহান রাফি ও তার ছোট ভাই শেদুল হাসান রায়হান ( ছবি : সংগৃহীত)

স্ট্যাটাসে নুসরাতের ভাই বলেন,  ‘আপু নেই, তাই আমাদের ঈদের আনন্দ নেই! শোককে শক্তিতে রূপান্তরিত করে এখনো বেঁচে আছি ওই মানুষরূপী হায়েনাদের ফাঁসির দড়িতে দেখব বলে! মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জাতির অহংকার নব বাংলাদেশের রূপকার মমতাময়ী মা দেশরত্ন শেখ হাসিনা, আমাদের পরিবারকে ডেকে নিয়ে একজন মমতাময়ী মায়ের পরিচয় দিয়েছেন। আমরা তার কাছে বলেছি, আমার আপুর হত্যাকারীদের যেন দ্রুত বিচার ও সর্বোচ্চ শাস্তি দেয়া হয়। তিনি আমাদের নিশ্চিত করেছেন, বিচারে কোনো দুর্বলতা রাখা হবে না। আসামিদের রেহাই দেয়া হবে না বলে তিনি বারবার অবগত করেছেন জাতিকে। সর্বশেষ জাতীয় সংসদেও উপস্থাপন করেছেন একাধিকবার। তিনি জানিয়েছেন, ওই খুনিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে উনার সর্বাত্মক সহায়তা সর্বাবস্থায় থাকবে।’

প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে রাশেদুল হাসান রায়হান বলেন, ‘আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও বিচার প্রশাসনের প্রতি আস্থা রেখে আশাবাদী আমার কলিজার টুকরা বোনের নির্মম এই হত্যাকাণ্ডের জড়িত সকল আসামিদের সর্বোচ্চ শাস্তি খুব শিগগিরই নিশ্চিত করবেন। একজন দেশ প্রধান যিনি হাজারো ব্যস্ততার মাঝেও সার্বক্ষণিক মনিটরিং করেছেন আমাদের এই মামলাটি। তারই আলোকে দ্রুত গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে মামলার কার্যক্রম। নিঃস্বার্থভাবে একজন মমতাময়ী মায়ের ভূমিকা পালন করে শুরু থেকে এ পর্যন্ত সরকারিভাবে আমাদের সর্বোচ্চ সহায়তা করে এসেছেন। প্রতিদিন থানা প্রশাসনের একজন এসআইয়ের নেতৃত্বে পুলিশ বাহিনীকে নিয়ে প্রতিনিয়ত আমাদের নিরাপত্তার জন্য দায়িত্ব পালন করে আসছেন। আমাদের মামলা দ্রুত গতিতে এগনোর পেছনে একমাত্র সঙ্গী ছিলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কঠোর হস্তক্ষেপ। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনার মহৎ ও বৃহত্তর মনের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করার ভাষা আমাদের মতো সাধারণ পরিবারের সদস্যের জানা নেই!’

প্রধানমন্ত্রী উদ্দেশ্যে রায়হান আরো বলেন, আপনার অবদানের কথা লিপিবদ্ধ করে শেষ করা যাবে না চির কৃতজ্ঞ থাকব। মমতাময়ী মা আপনার জন্য মহান আল্লাহর কাছে আপনার সুস্থ জীবন ও দীর্ঘায়ু কামনা করি। বোন হারা হতভাগা এই ভাইয়ের আপনার প্রতি আকুতি আপনার সুদৃঢ় নেতৃত্বের মাধ্যমে বাংলার জমিনে এ ধরনের হত্যাকাণ্ডের বিচার যেন স্বর্ণাক্ষরে আজীবন লিপিবদ্ধ হয়ে থাকে।’

পরিশেষে নুসরাতের জন্য দোয়া চেয়ে রাশেদ রায়হান লেখেন,  ‘শোকের সাগরে ভাসিয়ে চিরনিদ্রায় শায়িত আমার কলিজার টুকরা বোনের জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া চাই, আল্লাহ যেন আমার বোনকে জান্নাতের সর্বচ্চ স্থান জান্নাতুল ফেরদৌস দান করেন (আমিন)।’

নিউজওয়ান২৪.কম/আ.রাফি

আরও পড়ুন
স্বদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত