ঢাকা, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০
সর্বশেষ:
আইইডিসিআর এর করোনা কন্ট্রোল রুম (০১৭০০৭০৫৭৩৭) অথবা হটলাইন নম্বরে (০১৯৩৭১১০০১১, ০১৯৩৭০০০০১১, ০১৯২৭৭১১৭৮৪, ০১৯২৭৭১১৭৮৫, ০১৯৪৪৩৩৩২২২, ০১৫৫০০৬৪৯০১–০৫) যোগাযোগ করা যাবে। এ ছাড়া করোনাসংক্রান্ত তথ্য জানতে বা সহযোগিতা পেতে স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ এবং ৩৩৩ নম্বরে ফোন করা যাবে। অনলাইনে করোনা নিয়ে যোগাযোগ করতে আইইডিসিআরের ই-মেইল [email protected] এবং ফেসবুক পেজে (Iedcr,COVID19 Control Room) যোগাযোগ করা যাবে। জরুরি প্রয়োজনে কল করুন- ৯৯৯

হলো না জামিন, কারাগারেই থাকতে হচ্ছে খালেদাকে

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৫:২৩, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯  

খালেদা জিয়া                        -ফাইল ফটো

খালেদা জিয়া -ফাইল ফটো

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বহুল প্রত্যাশিত জামিন আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্টের আপিল বিভাগ। আজ (বৃহস্পতিবার) প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের ছয় বিচারপতির বেঞ্চ তার জামিন আবেদন খারিজ করে আদেশ দেন। সকল বিচারপতির সম্মতির ভিত্তিতে এ আদেশ দেয়া হয়। সকাল ১০টা ৮ মিনিটে আপিল বিভাগে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলার এ শুনানি শুরু হয় এবং শুনানি শেষে আবেদন খারিজ করে দেয়া হয়।

এ আদেশে, খালেদা জিয়া সম্মতি দিলে মেডিকেল বোর্ডের সুপারিশ অনুযায়ী তার বায়োলজিক্যাল চিকিৎসা শুরু করতে বলা হয়েছে।

রায় ঘোষণার আগে সকালে শুনানির শুরুতে খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যগত অবস্থা সম্পর্কিত মেডিক্যাল বোর্ডের প্রতিবেদন জমা দেন সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল আলী আকবর। এই জামিন আবেদনের শুনানিতে গত ২৮ নভেম্বর আপিল বিভাগ খালেদার সর্বশেষ স্বাস্থ্যগত অবস্থা সম্পর্কে জানাতে মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করে তাদের মেডিকেল রিপোর্ট ৫ ডিসেম্বরের মধ্যে দাখিল করতে নির্দেশ দিয়েছিলেন। পরে নির্ধারিত দিনে প্রতিবেদন জমা না হওয়ায় আজ ১২ ডিসেম্বর দিন ধার্য করে আদালত।

তেজগাঁও থানায় ২০১০ এর ৮ আগস্ট সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদাসহ ৪জনের বিরুদ্ধে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলা দায়ের করে দুদক। ক্ষমতার অপব্যবহার করে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্টের নামে ৩ কোটি ১৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগ আনা হয় আসামিদের বিরুদ্ধে। গত বছরের ২৯ অক্টোবর মামলায় খালেদাসহ ৪আসামিকে সাত বছর করে সশ্রম কারাদণ্ড দেয় আদালত। এই সাজা বাতিল চেয়ে পরের মাসের ১৮ তারিখ হাইকোর্টে আপিল করা হয়।

শুনানি শেষে গত ৩০ এপ্রিল হাইকোর্ট আপিলটি শুনানির জন্য গ্রহণ করেন। একইসঙ্গে খালেদা জিয়ার ক্ষেত্রে বিচারিক আদালতে দেয়া জরিমানার আদেশ স্থগিত করে বিচারিক আদালতে থাকা মামলাটির নথি তলব করেন হাইকোর্ট। গত ২০ জুন মামলার নথি হাইকোর্টে আসার পর খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন আদালতে তুলে ধরেন তার আইনজীবীরা। গত ৩১ জুলাই জামিন আবেদন খারিজ করেন হাইকোর্ট। পরে খালেদার আইনজীবীরা আপিল বিভাগে যান।

এদিকে, জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত বিএনপি চেয়ারপার্সনের জামিন আবেদন খারিজ করে দেওয়ায় 'শকড' ও আশ্চর্য হয়েছেন বলে জানিয়েছেন বিএনপি ঘরানার আইনজীবী মাহবুব উদ্দিন খোকন। জামিন আবেদন খারিজ হওয়ার পর বৃহস্পতিবার দুপুরে তাৎক্ষণিক এক প্রতিক্রিয়ায় তিনি এ কথা বলেন। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন আরো বলেন, আমরা মনে করি, আপিল বিভাগের এই ধরনের রায় নজিরবিহীন। আমরা আইনি প্রক্রিয়ায় সামনে এগিয়ে যাবো।

অন্যদিকে, খালেদা জিয়ার মামলায় সরকারের কোনো হাত নেই বলে উল্লেখ করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। আজ (বৃহস্পতিবার) কুড়িগ্রাম জেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক কাউন্সিলে প্রধান অতিথির বক্তব্য দানকালে তিনি একথা বলেন।

নিউজওয়ান২৪.কম/এসএল

আরও পড়ুন
আইন আদালত বিভাগের সর্বাধিক পঠিত