ঢাকা, ০৪ আগস্ট, ২০২০
সর্বশেষ:
সেহরি ও ইফতারের সময় সূচি : ঢাকায় প্রথম রোজার সেহরির শেষ সময় রাত ৪টা ৫ মিনিটে আর ইফতার হবে সন্ধ্যা ৬টা ২৮ মিনিটে। আইইডিসিআর এর করোনা কন্ট্রোল রুম (০১৭০০৭০৫৭৩৭) অথবা হটলাইন নম্বরে (০১৯৩৭১১০০১১, ০১৯৩৭০০০০১১, ০১৯২৭৭১১৭৮৪, ০১৯২৭৭১১৭৮৫, ০১৯৪৪৩৩৩২২২, ০১৫৫০০৬৪৯০১–০৫) যোগাযোগ করা যাবে। এ ছাড়া করোনাসংক্রান্ত তথ্য জানতে বা সহযোগিতা পেতে স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ এবং ৩৩৩ নম্বরে ফোন করা যাবে। অনলাইনে করোনা নিয়ে যোগাযোগ করতে আইইডিসিআরের ই-মেইল [email protected] এবং ফেসবুক পেজে (Iedcr,COVID19 Control Room) যোগাযোগ করা যাবে। জরুরি প্রয়োজনে কল করুন- ৯৯৯

সেরা ‘বাংলাবিদ’ শাহেদ

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ০০:১৯, ১৩ অক্টোবর ২০১৯  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

বাংলা ভাষা ও সাহিত্য বিষয়ে কঠিন সব প্রশ্নের উত্তর দিয়ে ৮৫ হাজার প্রতিযোগীর মধ্যে সেরা ‘বাংলাবিদ’ নির্বাচিত হয়েছেন রাজশাহীর ছেলে শাজেদুর রহমান শাহেদ।

শুক্রবার রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে ‘ইস্পাহানি মির্জাপুর বাংলাবিদ-২০১৯’-এর চূড়ান্ত পর্বে প্রতিযোগিতার মুখোমুখি হন সেরা ছয়জন। প্রায় দুই ঘণ্টার প্রতিযোগিতায় বাংলাভাষা, শব্দ, বানানরীতি, সাহিত্য, গান, কবিতা ও কবিদের সম্পর্কে বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন তারা।

বরিশাল থেকে অয়ন চক্রবর্তী, ময়মনসিংহের অন্তিকা জান্নাত, রাজশাহীর শাজেদুর রহমান শাহেদ, ঢাকার সুমেহরা কবির, চট্টগ্রামের সাকিরা নূর মজুমদার ও বরিশালের খাতুনে জান্নাত প্রাপ্তি ছিলেন সেরা হওয়ার লড়াইয়ে।

চার ধাপের প্রতিযোগিতা শেষে রাজশাহীর ছেলে শাহেদকে এই বছরের সেরা বাংলাবিদ ঘোষণা করেন বিচারকরা। পুরস্কার হিসাবে তিনি জিতে নেন ১০ লাখ টাকার শিক্ষাবৃত্তি।

দ্বিতীয় স্থান অধিকারি অন্তিকা জান্নাত পাচ্ছেন তিন লাখ টাকার শিক্ষাবৃত্তি, তৃতীয় স্থানে থাকা অয়ন চক্রবর্তী পাচ্ছেন দুই লাখ টাকার শিক্ষাবৃত্তি।

সেরা ১০ জনের মধ্যে স্থান করে নিয়েছেন ফাহিম ফাহাদ অর্ক, মৌমিতা তাসরিন, ইলমা আক্তার ও সৌমিক মন্ডল।

সেরা ১০ জনের প্রত্যেককে একটি করে ল্যাপটপ ও ৫০ হাজার টাকা সমমূল্যের বই ও আলমারি দেয়া হয়েছে।

সেরা বাংলাবিদ তৃতীয় আসরের এই প্রতিযোগিতায় বিচারক ছিলেন লেখক আনিসুল হক, অধ্যাপক সৌমিত্র শেখর ও অভিনেত্রী-নাট্য নির্দেশক ত্রপা মজুমদার। অতিথি বিচারক হিসাবে ছিলেন হোসেন জিল্লুর রহমান।

পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ছিলেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি, এমএম ইস্পাহানি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মির্জা শাকির ইস্পাহানি, পরিচালক মির্জা আলি ইস্পাহানি, ইস্পাহানি টি লিমিডেটের মহা ব্যবস্থাপক ওমর হান্নান।

দীপু মনি বলেন, বাংলা ভাষার চর্চার মাধ্যমে নতুন প্রজন্মের মধ্যে দেশপ্রেম ও দেশের প্রতি অনুরাগ ছড়িয়ে পড়বে। এধরনের প্রতিযোগিতা বাংলা ভাষাকে শিক্ষার্থীদের মধ্যে আরও বেশি গুরুত্বপূর্ণ করে তুলবে।

বাংলাবিদ হিসাবে জয়ী হওয়ার পর শাহেদ বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “ফলাফল নিয়ে আমি খুবই আনন্দিত। ছোট বেলা থেকেই বাংলাভাষা ও সাহিত্যের প্রতি আমার ঝোঁক ছিল। সব সময় বাংলা সাহিত্য, গল্প, কবিতা পড়তি পছন্দ করি। আজ তারই স্বীকৃতি পেলাম।”

অয়ন চক্রবর্তী বলেন, এবার যে ফলাফল করেছি তাতে আমি খুশি। ভবিষ্যতে এধরনের প্রতিযোগিতায় আরো ভালো কিছু করার আশা করছি।

নিউজওয়ান২৪.কম/এমজেড