ঢাকা, ৩১ মে, ২০২০
সর্বশেষ:
সেহরি ও ইফতারের সময় সূচি : ঢাকায় প্রথম রোজার সেহরির শেষ সময় রাত ৪টা ৫ মিনিটে আর ইফতার হবে সন্ধ্যা ৬টা ২৮ মিনিটে। আইইডিসিআর এর করোনা কন্ট্রোল রুম (০১৭০০৭০৫৭৩৭) অথবা হটলাইন নম্বরে (০১৯৩৭১১০০১১, ০১৯৩৭০০০০১১, ০১৯২৭৭১১৭৮৪, ০১৯২৭৭১১৭৮৫, ০১৯৪৪৩৩৩২২২, ০১৫৫০০৬৪৯০১–০৫) যোগাযোগ করা যাবে। এ ছাড়া করোনাসংক্রান্ত তথ্য জানতে বা সহযোগিতা পেতে স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ এবং ৩৩৩ নম্বরে ফোন করা যাবে। অনলাইনে করোনা নিয়ে যোগাযোগ করতে আইইডিসিআরের ই-মেইল [email protected] এবং ফেসবুক পেজে (Iedcr,COVID19 Control Room) যোগাযোগ করা যাবে। জরুরি প্রয়োজনে কল করুন- ৯৯৯

রাশিয়া চাপ দিলে মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে পারে

স্টাফ রিপোর্টার

প্রকাশিত: ১৭:৩২, ২৩ ডিসেম্বর ২০১৯  

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন মনে করেন যে রাশিয়া যথেষ্ট চাপ দিলে হয়তো মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে পারে।আজ সোমবার (২৩ ডিসেম্বর) রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে সোভিয়েত/রাশিয়ায় গ্র্যাজুয়েটদের পঞ্চম এশিয়ান কনফারেন্সের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এমন মন্তব্য করেন তিনি।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, 'মিয়ানমারের ওপর রাশিয়ার অনেক প্রভাব রয়েছে। তারা চাপ দিলে হয়তো মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের ফেরত নেবে। তখন নিপীড়িত এই মানুষগুলো একটা ভালো জীবনে ফিরে যেতে পারবে। ড. মোমেন বলেন, রাশিয়া তথা সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের (ইউএসএসআর) সঙ্গে বাংলাদেশের বন্ধুত্বের দীর্ঘ ইতিহাস রয়েছে। মুক্তিযুদ্ধকালীন এবং পরবর্তীতে সোভিয়েত ইউনিয়ন আমাদের যে সমর্থন দিয়েছে তা ভোলার নয়। তারা একাত্তরে বাংলাদেশের জনগণের প্রতি সংঘটিত নৃশংসতার বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে আওয়াজ তুলেছিল এবং আমাদের স্বাধীনতার পরপরই পুনর্নির্মাণ ও পুনর্বাসন প্রচেষ্টায় সক্রিয়ভাবে অংশ নিয়েছিল। আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি অর্জনে এবং জাতিসংঘে আমাদের প্রবেশের সুবিধার্থেও বাংলাদেশকে সহায়তা প্রদান করেছিল ইউএসএসআর। তাদের নিঃশর্ত সহায়তার জন্য সোভিয়েত ইউনিয়ন, তার নেতৃত্ব, সরকার ও জনগণ বাংলাদেশিদের হৃদয়ে একটি বিশেষ স্থান অর্জন করে আছে।'

তিনি বলেন, ‌'১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের পর বাংলাদেশে যে রাজনৈতিক অস্থিরতা সৃষ্টি হয়েছিল তাতে দুদেশের সম্পর্কে কিছুটা ভাটা পড়ে। সোভিয়েত ইউনিয়নও ১৯৯১ সালে ভেঙে ১৫টি রাষ্ট্রের জন্ম দেয়। তবে বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে আবারও সে সম্পর্ক সুন্দরভাবে এগিয়ে যাচ্ছে। শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার পর আমাদের দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য বেড়েছে অনেকগুলো চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে। রূপপুর বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রের কাজ এগিয়ে চলছে।' প্রসঙ্গত রুশ সহযোগিতায় নির্মিত হচ্ছে রূপপুর পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্র।

তিনি বলেন, ‌'বাংলাদেশ রাশিয়ার সঙ্গে রাজনৈতিক এবং অর্থনৈতিক সম্পর্কের পরিধি আরও বাড়াতে চায়। এর ফলে দুই দেশের মানুষ উপকৃত হবে। বাংলাদেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধি এখন ৮.১ শতাংশ। আমাদের অর্থনীতি এখন অনেক ভালো।'

ড. মোমেন বাংলাদেশে রুশ বিনিয়োগ আহ্বান করে আরো বলেন, 'রাশিয়া যেন এ দেশে বিনিয়োগ করে। কারণ এখানে যে কোনো পণ্য তৈরি করলে তার মার্কেট প্রস্তুত রয়েছে। বাংলাদেশে বিনিয়োগ করলে উইন উইন সিচুয়েশন হয়।'
নিউজওয়ান২৪.কম/আরকে

আরও পড়ুন
বিশ্ব সংবাদ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত