ঢাকা, ১৪ অক্টোবর, ২০১৯
সর্বশেষ:
আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন ডিসেম্বরে হেল্পলাইন ১৬২৬৩ এ কল করলেই ডাক্তারের পরামর্শ ডেঙ্গি নিয়ন্ত্রণে একটি সমন্বিত পদক্ষেপ খুবই জরুরি

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে বিজেপির প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় লাঞ্ছিত

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২৩:৩৪, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

ঘটনাস্থল যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা             ছবি: এনবিটি

ঘটনাস্থল যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা ছবি: এনবিটি

পশ্চিমবঙ্গের যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রদের হাতে লাঞ্ছিত হয়েছেন ভারতের কেন্দ্রীয় প্রমন্ত্রী ও বিজেপি নেতা বাবুল সুপ্রিয়। 
মুম্বাই সিনেমার সাবেক প্লেব্যাক সিঙ্গার ভারতের কেন্দ্রীয় পরিবেশ ও বন প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় বৃহস্পতিবার বিকেলে কলকাতার যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে গিয়েছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি উৎসবে যোগ দিতে। এসময় বামপন্থি ছাত্রসংগঠনের কর্মীরা তাকে লাঞ্ছিত করে, এসময় তার চশমা ভেঙ্গে যায়। খাবর পেয়ে তাকে উদ্ধারে আসা রাজ্যপালের বিরুদ্ধে ছাত্ররা ক্ষোভ প্রকাশ করে। 

বিজেপির ছাত্রসংগঠন ‘অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদ’ আয়োজিত নবীনবরণ উৎসবে যোগ দিতে যাওয়া প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়র সঙ্গে এসময় বিজেপি নেত্রী অগ্নিমিত্রা পালও ছিলেন।

এসময় যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের বাবুল সুপ্রিয়কে অবরুদ্ধ করে রাখে।

প্রকাশিত খবরে জানা গেছে, অনুষ্ঠানে যোগ দিতে বাবুল সুপ্রিয় বিশ্ববিদ্যালয়ে যান। তবে সেখানে তাকে ঢুকতে না দিয়ে হলের কাছে আটকে রাখে শিক্ষার্থীরা। এ সময় বিক্ষোভকারীরা স্লোগান দিতে থাকে ‘ফিরে যাও বাবুল সুপ্রিয়’।

এসময় কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা বাবুল সুপ্রিয়র সঙ্গে ছিল। তা সত্ত্বেও শিক্ষার্থীরা এককাট্টা হয়ে ঘোষণা দেন, বাবুল সুপ্রিয়সহ বিজেপির কাউকে বিশ্ববিদ্যালয়ে ঢুকতে দেওয়া হবে না। বিক্ষোভ চরমে পৌঁছালে একদল ছাত্রছাত্রী বাবুল সুপ্রিয়কে লাঞ্ছিত করেন। তাকে চড়-থাপ্পড় মারা হয়। তাঁর জামা ছিঁড়ে দেওয়া হয়। মারপিটের সময় তার চশমা ভেঙে যায়। বিজেপি নেত্রী অগ্নিমিত্রা পালকেও অনুষ্ঠানে ঢুকতে বাধা দেওয়া হয়।

অপরদিকে, কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী সুপ্রিয়কে ঘেরাও করা হয়েছে শুনে ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সুরঞ্জন দাস। তিনি শিক্ষার্থীদের শান্ত করতে গিয়ে ব্যর্থ হন। শিক্ষার্থীরা দাবি তোলেন, পরবর্তী সময়ে বিজেপি বা তাদের কোনোও অঙ্গসংগঠনকে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের মিলনায়তনে অনুষ্ঠানের অনুমতি দেওয়া হবে না— এই মর্মে উপাচার্যকে ঘোষণা দিতে হবে।

পরিস্থিতি আরও ঘোলাটে হলে উপাচার্যও সংঘর্ষের মুখে পড়ে আহত হন। তাকে উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়া হয় কাছের হাসপাতালে।  সংঘর্ষকালে দুজন শিক্ষার্থী বাবুল সুপ্রিয়র নিরাপত্তা কর্মীদের হাতে প্রহৃত হন। তাদেরও হাসপাতালে নেওয়া হয়। 
নিউজওয়ান২৪.কম/এসএল 

বিশ্ব সংবাদ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত