ঢাকা, ১৩ আগস্ট, ২০২০
সর্বশেষ:
সেহরি ও ইফতারের সময় সূচি : ঢাকায় প্রথম রোজার সেহরির শেষ সময় রাত ৪টা ৫ মিনিটে আর ইফতার হবে সন্ধ্যা ৬টা ২৮ মিনিটে। আইইডিসিআর এর করোনা কন্ট্রোল রুম (০১৭০০৭০৫৭৩৭) অথবা হটলাইন নম্বরে (০১৯৩৭১১০০১১, ০১৯৩৭০০০০১১, ০১৯২৭৭১১৭৮৪, ০১৯২৭৭১১৭৮৫, ০১৯৪৪৩৩৩২২২, ০১৫৫০০৬৪৯০১–০৫) যোগাযোগ করা যাবে। এ ছাড়া করোনাসংক্রান্ত তথ্য জানতে বা সহযোগিতা পেতে স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ এবং ৩৩৩ নম্বরে ফোন করা যাবে। অনলাইনে করোনা নিয়ে যোগাযোগ করতে আইইডিসিআরের ই-মেইল [email protected] এবং ফেসবুক পেজে (Iedcr,COVID19 Control Room) যোগাযোগ করা যাবে। জরুরি প্রয়োজনে কল করুন- ৯৯৯

মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মাননা দিল জিপিএইচ ইস্পাত

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৩:২৯, ২৬ ডিসেম্বর ২০১৮  

সম্মাননাপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধাদের সঙ্গে চসিক মেয়র আ.জ.ম নাছির উদ্দীন, চিটাগাং চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি মাহবুবুল আলম, জিপিএইচ ইস্পাতের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম ও অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ আলমাস শিমুল

সম্মাননাপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধাদের সঙ্গে চসিক মেয়র আ.জ.ম নাছির উদ্দীন, চিটাগাং চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি মাহবুবুল আলম, জিপিএইচ ইস্পাতের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম ও অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ আলমাস শিমুল

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত প্রকৌশল খাতের কোম্পানি জিপিএইচ ইস্পাত লিমিটেড মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মাননা দিয়েছে। 

এ উপলক্ষ্যে  সোমবার (২৪ ডিসেম্বর) চট্টগ্রাম জেলা পরিষদ মিলনায়তনে একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন’র মেয়র আ.জ.ম নাছির উদ্দীন, বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম। 

অনুষ্ঠানে সভাপতিতত্ব করেন জিপিএইচ ইস্পাতের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম।

সম্মাননা অনুষ্ঠানটি কার্যত চট্টগ্রামের মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডারদের মিলনমেলায় পরিণত হয়। জিপিএইচ ইস্পাতই প্রথম কর্পোরেট হাউজ যারা প্রথম চট্টগ্রামে মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মাননা দিয়েছে।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ.জ.ম নাছির উদ্দীন বলেন “২০১৮ সালের এই ডিসেম্বর বিজয়ের মাসে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবাহী বীরদের সম্মাননা জানানো জিপিএইচ ইস্পাতের একটি মহতী উদ্যোগ। জিপিএইচ ইস্পাতের মতো সামাজিক দায়বদ্ধ কর্পোরেট হাউসের এই উদ্যোগ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের জন্য অনুসরনীয়। তিনি বলেন, মুক্তিযোদ্ধাদের পরবর্তী প্রজন্মও যাতে ৭১’র চেতনাবাহী হয় সেদিকে মুক্তিযোদ্ধাদের খেয়াল রাখতে হবে।

বিশেষ অতিথি চট্টগ্রাম চেম্বারের সভাপতি মাহবুবুল আলম বলেন, জিপিএইচ ইস্পাত জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধাদের যে সম্মাননা দিচ্ছে তার জন্য বেসরকারী খাতের এপেক্স ট্রেড বডির পক্ষ থেকে অভিনন্দন জানাচ্ছি। আমাদের ৭১’র মুক্তিযোদ্ধাদের সংগ্রামের মতো আগামীতেও অর্থনৈতিক উন্নয়নের সংগ্রামে বেসরকারীখাতকে দৃঢ় থাকতে হবে।

জিপিএইচ ইস্পাতের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ১৯৭১ সালের জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান মুক্তিযোদ্ধারা সংগ্রাম না করলে আমরা এই বাংলাদেশ পেতাম না। এই সম্মাননা প্রদান করে পরোক্ষে জিপিএইচ ইস্পাতই সম্মানিত হয়েছে। মুক্তিযুদ্ধে নারীদের বিশাল ভূমিকা রয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, আজকে বাংলাদেশের বাজেট প্রায় ৫ লাখ কোটি টাকায় উন্নীত হয়েছে। তিনি বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের অর্থনৈতিক ও সামাজিক সূচকের তুলনামূলক পরিসংখ্যান দিয়ে বলেন, বাংলাদেশ সব খাতেই পাকিস্তানের চেয়ে অনেক এগিয়ে। অনুষ্ঠানে জিপিএইচ ইস্পাতের অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ আলমাস শিমুল উপস্থিত ছিলেন। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন নগর ডেপুটি কমান্ডার মোহাম্মদ শহীদুল হক চৌধুরী সৈয়দ।

সম্মাননাপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা ফটিকছড়ি অঞ্চলের বাংলাদেশ লিবারেশন ফোর্স কমান্ডার মির্জা আবু মনসুর তার প্রতিক্রিয়ায় বলেন, মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ আমার জীবনের স্মরনীয় ঘটনা। তৎকালীন নির্বাচিত প্রাদেশিক পরিষদ সদস্য হিসেবে আমাদের মরণপন সংগ্রাম ছিলো বিজয় অর্জন করা।

সম্মাননাপ্রাপ্ত চট্টগ্রাম নগরীর বাংলাদেশ লিবারেশন ফোর্স এর গ্রুপ কমান্ডার ডা. মাহফুজুর রহমান বলেন- “আমাদের বর্তমান প্রজন্মের কাছে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ও মর্মবানী পৌঁছাতে পারলেই এ ধরনের সম্মাননা অনুষ্ঠান সার্থক হবে। ৫২’র ভাষা আন্দোলনের সূত্র ধরে বলেন, এখনও ইংরেজিতে সাইনবোর্ড লেখা হয়। আমরা কালো কালি লেপন করে একটা ছোট উদ্যোগ নিয়েছি। এখন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এতে সহয়তা দিচ্ছে। এ ভাবেই ছোট ছোট উদ্যোগের মাধ্যামের মুক্তিযুদ্ধের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে হবে।

ডা. আবু ইউসুফ চৌধুরী বলেন,  জিপিএইচ ইস্পাত এর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মান জানানোর যে উদ্দ্যোগ গ্রহণ করেছে তা অত্যন্ত প্রশংসনীয়। আগামীতেও তাদের এ উদ্যোগ অব্যাহত থাকবে বলে জিপিএইচ যে ঘোষণা দিয়েছে তা অভিনন্দনের দাবী রাখে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি সম্মাননা প্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের হাতে ক্রেস্ট, শাল, আর্থিক সম্মাননার চেক তুলে দেন। প্রধান অতিথিকে ক্রেস্ট প্রদান করেন জিপিএইচ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম, বিশেষ অতিথিকে ক্রেস্ট প্রদান করেন অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ আলমাস শিমুল।

অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম মহানগর ও জেলার কমান্ডারগণ, শহীদ পরিবারের সদস্যগণ ও নতুন প্রজন্মের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

সূত্র: অর্থ সূচক

নিউজওয়ান২৪/আরএডব্লিউ

অর্থ-কড়ি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত