ঢাকা, ২৩ জুন, ২০২১
সর্বশেষ:

মিউজিক থেরাপি কি?

ডেস্ক রির্পোট

প্রকাশিত: ২৩:৪৪, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

প্রতীকী চিত্র

প্রতীকী চিত্র

অসুখ এবং ওষুধ যেন আমাদের নিত্য দিনের সঙ্গী হয়ে দাঁড়িয়েছে। প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় যেন ওষুধ এক প্রকার খাবার। কিন্তু ওষুধ সেবনের তো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া রয়েছে যা সম্পর্কে আমরা অনেকেই অবগত নয় অথবা অবগত হলেও হয়তো নিরুপায়। করারই বা কি আছে। হয়তো আছে; এই ভেবেই তাই রোগমুক্তির নানা কার্যকরী উপায় আবিষ্কারে প্রাচীনকাল থেকেই সন্ধান করে আসছেন চিকিৎসা বিজ্ঞানীরা। এই সন্ধান গবেষণার নতুন সংযোজন মিউজিক থেরাপি বা সুর-চিকিৎসা! যার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই বললেই চলে।

সুর তরঙ্গের মাধ্যমে নিস্তেজ স্নায়ুকে জাগিয়ে তোলার মাধ্যমে শরীরের রোগ সারিয়ে তোলাই মিউজিক থেরাপির মূল কথা। মানসিক চাপ হ্রাস, আধ্যাত্মিক চিন্তা বৃদ্ধি ও অন্যান্য অনেক সমস্যার সমাধানে সংগীত পালন করে আসছে এক অনবদ্য ভূমিকা। 

সাম্প্রতিক গবেষণায় দেখা গেছে, চিকিৎসা বিজ্ঞানের বহু জটিল সমস্যা সংগীত-সুরের মাধ্যমে সমাধান করা সম্ভব। যেমন মাথাব্যথা, জ্বর কিংবা ঘুমের ব্যাঘাত। অথবা ক্যানসারের মতো জটিল জীবন সংশয়ী অসুস্থতা কিংবা হাপানির মতো ক্রনিক ডিজিজ।

মিউজিক থেরাপি যেকোনো বয়সের জন্য সমানভাবে উপকারী। শুধু রোগ নিরাময়ে নয়, এই থেরাপির মধ্য দিয়ে শারীরিক ও মানসিক চাপ কমানো, ঝরঝরে থাকা, স্মৃতিশক্তি বাড়ানো, যন্ত্রণা উপশম, শারীরিক সক্ষমতা বৃদ্ধি ইত্যাদি গড়ে তোলা যায়। 

স্বাভাবিক একটি বিষয় লক্ষ করি, আমরা বিভিন্ন সুপারশপ কিংবা শপিং মলে গেলেই খুব নরম সুরের কিছু মিউজিক শুনতে পাই। মিউজিকগুলোর পছন্দ তালিকা এমনভাবে তৈরি করা হয় যে আমরা সেদিকে খেয়াল না করেই অনেকটা রিলাক্সে আমাদের কাজ করে থাকি। 

আসলে মিউজিকগুলো আমাদের ক্লান্তি দূর করতে অনেকটাই সহায়ক ভূমিকা রাখে। মূলত মিউজিক থেরাপি হলো ওষুধের মতো, যা এখন চিকিৎসা কাজে ব্যবহৃত হতে শুরু করেছে। তবে শুধু মিউজিক হলেই তো আর হবে না, উপযুক্ত রোগের জন্য ব্যবহার করতে হবে উপযুক্ত সুর বা তাল।

লাইফস্টাইল বিভাগের সর্বাধিক পঠিত