ঢাকা, ১৩ আগস্ট, ২০২০
সর্বশেষ:
সেহরি ও ইফতারের সময় সূচি : ঢাকায় প্রথম রোজার সেহরির শেষ সময় রাত ৪টা ৫ মিনিটে আর ইফতার হবে সন্ধ্যা ৬টা ২৮ মিনিটে। আইইডিসিআর এর করোনা কন্ট্রোল রুম (০১৭০০৭০৫৭৩৭) অথবা হটলাইন নম্বরে (০১৯৩৭১১০০১১, ০১৯৩৭০০০০১১, ০১৯২৭৭১১৭৮৪, ০১৯২৭৭১১৭৮৫, ০১৯৪৪৩৩৩২২২, ০১৫৫০০৬৪৯০১–০৫) যোগাযোগ করা যাবে। এ ছাড়া করোনাসংক্রান্ত তথ্য জানতে বা সহযোগিতা পেতে স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ এবং ৩৩৩ নম্বরে ফোন করা যাবে। অনলাইনে করোনা নিয়ে যোগাযোগ করতে আইইডিসিআরের ই-মেইল [email protected] এবং ফেসবুক পেজে (Iedcr,COVID19 Control Room) যোগাযোগ করা যাবে। জরুরি প্রয়োজনে কল করুন- ৯৯৯

মাত্র একমাসে মহা মেধাবী বুবলী’র ভাই!

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৭:২০, ১৭ অক্টোবর ২০১৮  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

সি‌নেমার গ‌ল্পের ম‌তোই বদলে গেলো বুবলীর ছোট ভাই জাহিদ হাসান আকাশের ফলাফল। হঠাৎ করে তু‌খোড় মেধাবী হ‌য়ে গেলেন তিনি! ঢাকা ইউনিভার্সিটির পরীক্ষায় ‘গ’ ইউনিটে যে পাসই করেননি কিন্তু ‘ঘ’ ইউ‌নি‌টে তিনি প্রথম!


বুবলী এবং ভাই জাহিদ হাসান আকাশ

জানা গেছে, আকাশ (বুবলীর ভাই) ব্যবসায় শিক্ষা শাখা থেকে এবার উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা দিয়েছেন। সেখানে তিনি জিপিএ ৫ পেয়েছেন।

তিনি গত ১২ অক্টোবর ঢাবির সমাজ বিজ্ঞান অনুষদে ভর্তির জন্য ঘ ইউনিটে পরীক্ষা দেন। সেখানে ব্যবসায় শাখা বিভাগে প্রথম স্থান অধিকার করেছেন। অথচ ব্যবসায় শিক্ষা শাখার এই শিক্ষার্থী এর আগে বাণিজ্য অনুষদে ভর্তির জন্য দেয়া গ ইউনিটের পরীক্ষায় ফেল করেন।

তাছাড়া ঘ ইউনিটের পরীক্ষার দিনই এই ইউনিটের প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ ওঠে। এর মধ্যেই ফল প্রকাশ করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। যেখানে মেধা তালিকায় থাকা শিক্ষার্থীদের দুই ইউনিটের ফলাফলের মধ্যে ব্যাপক পার্থক্য দেখা যায়। তাতে প্রথম স্থান অধিকার করে বুবলীর পরিবারের সম্মান উজ্জ্বল করেছেন জাহিদ হাসান আকাশ।


জাহিদ হাসান আকাশের ফলাফল

এই প্রসঙ্গে বুবলীর সঙ্গে কথা বলতে একাধিকবার ফোন করেও তাকে পাওয়া যায়নি। 

এদিকে, ঢাবির গ ইউনিটের পরীক্ষায় ফলাফলে দেখা যায় তিনি বাংলায় পেয়েছিলেন ১০.৮, ইংরেজিতে পেয়েছিলেন ২.৪০। অথচ এই শিক্ষার্থী ঘ ইউনিটের পরীক্ষায় বাংলায় ৩০ এর মধ্যে ৩০, ইংরেজিতে ৩০ এর মধ্যে ২৭.৩০ পেয়েছেন। যা রেকর্ড বলা যায়।

তাছাড়া আকাশ ঢাবির গ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় সর্বমোট ১২০ নম্বরের মধ্যে পেয়েছিলেন ৩৪.৩২। অথচ মাত্র এক মাসের ব্যবধানে ঘ ইউনিটের পরীক্ষায় মোট ১২০ নম্বরের মধ্যে তিনি ১১৪.৩০ পেয়ে সম্মিলিত মেধাতালিকার বাণিজ্য শাখায় প্রথম স্থান অধিকার করেছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিসংখ্যান বলছে, গত ২০ বছরে ১২০ এর মধ্যে ১১৪.৩০ কেউ পায়নি। তাছাড়া এবারের ঘ ইউনিটের পরীক্ষায় যিনি দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন তিনি পেয়েছেন ১২০ এর মধ্যে ৯৮.৪০। মেধাক্রমে যার ব্যবধান অনেক।

গত মঙ্গলবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ঘ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে। এতে ২৬.২১ শতাংশ শিক্ষার্থী পাস করেছেন।

নিউজওয়ান২৪/জেডএস