ঢাকা, ১৫ আগস্ট, ২০২০
সর্বশেষ:
সেহরি ও ইফতারের সময় সূচি : ঢাকায় প্রথম রোজার সেহরির শেষ সময় রাত ৪টা ৫ মিনিটে আর ইফতার হবে সন্ধ্যা ৬টা ২৮ মিনিটে। আইইডিসিআর এর করোনা কন্ট্রোল রুম (০১৭০০৭০৫৭৩৭) অথবা হটলাইন নম্বরে (০১৯৩৭১১০০১১, ০১৯৩৭০০০০১১, ০১৯২৭৭১১৭৮৪, ০১৯২৭৭১১৭৮৫, ০১৯৪৪৩৩৩২২২, ০১৫৫০০৬৪৯০১–০৫) যোগাযোগ করা যাবে। এ ছাড়া করোনাসংক্রান্ত তথ্য জানতে বা সহযোগিতা পেতে স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ এবং ৩৩৩ নম্বরে ফোন করা যাবে। অনলাইনে করোনা নিয়ে যোগাযোগ করতে আইইডিসিআরের ই-মেইল [email protected] এবং ফেসবুক পেজে (Iedcr,COVID19 Control Room) যোগাযোগ করা যাবে। জরুরি প্রয়োজনে কল করুন- ৯৯৯

ব্যস্ত সড়ক পাশে আল্লাহর ৯৯ নামের দৃষ্টিনন্দন ভাস্কর্য

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২২:৪১, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

আল্লাহর অংসংখ্য গুণবাচক নাম রয়েছে। মুসলিম বিশ্বে ধর্মপ্রাণ নরনারীর কাছে আল্লাহর ৯৯ নামের মর্যাদা খুবই গুরুত্বের আসনে রয়েছে। অভিনিবেশ সহকারে এই নামসমূহের আমল জান্নাতের পথে নিয়ে যেতে পারে ইমানদারদের। মহাফজিলতময় এই নামসমূহের চর্চা দৈনন্দিন মুসলিম সমাজে সুবিদিত। মহান আল্লাহর এই গুণবাচক নামগুলোকে দিয়ে কুমিল্লায় ব্যস্ত এক রাস্তার মোড়ে এবার তৈরি করা হয়েছে দৃষ্টিনন্দন এক ভাস্কর্য।

কুমিল্লা জেলার মুরাদনগর উপজেলা সদরের বাসস্ট্যান্ডের পূর্ব পাশের তিন রাস্তার মোড়ে ‘আল্লাহু চত্বর’ নামে দৃষ্টিনন্দন এ ভাস্কর্য নির্মাণ করা হয়েছে যার উদ্বোধন করেছেন স্থানীয় সংসদ সদস্য ইউসুফ আব্দুল্লাহ হারুন।

ভূমি থেকে ভাস্কর্যটির উচ্চতা ৩০ ফুট এবং ব্যাস ১৪ ফুট। পুরো ফলকটি ছয়টি আরবি ক্যালিগ্রাফি টেরাকোটা সমৃদ্ধ। ভাস্কর্যটির একেবারে শীর্ষে ‘আল্লাহু’লেখা রয়েছে। মাঝখানে সুউচ্চ এ ভাস্কর্যে আল্লাহ তাআলার গুণবাচক অপরাপর নামগুলো সিমেন্টে খোদাই করে সাজানো রয়েছে।

আল্লাহতা’আলার গুণবাচক ৯৯ নামে নির্মিত এ ভাস্কর্যটির প্রশংসা এখন মুরাদনগরবাসীসহ দর্শনার্থী ও পথচারী সবার মুখে মুখে। 

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, আল্লাহর গুণবাচক ৯৯ নাম খচিত ভাস্কর্যটির ড্রয়িং ও ডিজাইন করেছেন স্বয়ং সংসদ সদস্য ইউসুফ আব্দুল্লাহ হারুন নিজেই। সাবেক এফবিসিসিআই সভাপতি, আওয়ামী লীগ কেন্দ্রিয় কমিটির সাবেক অর্থ ও পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক ও বর্তমান স্থানীয় সংসদ সদস্য ইউসুফ আব্দুল্লাহ হারুনের তত্ত্বাবধানে নির্মিত হয়েছে এ বিশাল চত্বর ও ভাস্কর্য।

মুরাদনগর উপজেলা সদরে এ ভাস্কর্য তৈরি হওয়ায় ‘আল্লাহু চত্ত্বর’-এ বাড়ছে দর্শনার্থীদের ভিড়। কুমিল্লা জেলার মধ্যে এ চত্ত্বরটি বড় এবং ভাস্কর্যটিও সবচেয়ে উঁচু। সড়কের পরিবেশে এক অন্যরকম মাত্রা যোগ করেছে এটি।

আরও পড়ুন
স্বদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত