ঢাকা, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
সর্বশেষ:
আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন ডিসেম্বরে হেল্পলাইন ১৬২৬৩ এ কল করলেই ডাক্তারের পরামর্শ ডেঙ্গি নিয়ন্ত্রণে একটি সমন্বিত পদক্ষেপ খুবই জরুরি

‘বিজেপি নেতাদের সাক্ষাতের চেষ্টায় ব্যর্থ হয়েছি’

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৮:২১, ২৯ ডিসেম্বর ২০১৮  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

ক্ষমতাসীন ভারতীয় জনতা পার্টি-বিজেপির সঙ্গে বৈঠকের চেষ্টা করে বিএনপি ব্যর্থ হয়েছে বলে জানিয়েছেন দলের সাধারণ সম্পাদক ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মুখপাত্র মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে বিএনপির মহাসচিব বলেছেন, এ বছরের আগস্টে বিজেপির সাধারণ সম্পাদক রাম মাধবের সঙ্গে থাইল্যান্ডের ব্যাংককে বৈঠক করতে চেয়েছিলেন তারা। বিজেপির সাড়া না পাওয়ায় হতাশ হয়েছে তার দল। 

বিএনপির বিরুদ্ধে ‘ভারত বিরোধিতার অভিযোগ’কে আওয়ামী লীগের ‘পরিকল্পিত প্রচারণা’ আখ্যা দিয়ে ফখরুল জানিয়েছেন, ভারতের কাছাকাছি আসার চেষ্টা করছেন তারা।

শনিবার (২৯ ডিসেম্বর) প্রকাশিত ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে দেয়া সাক্ষাৎকারে মির্জা ফখরুল বলেন, দেশের বাইরে আমরা ভারতীয় নেতাদের সঙ্গে বৈঠকের চেষ্টা করেছি। আমরা ভারতীয় হাইকমিশনারের সাক্ষাৎ চেয়েছি এবং সাক্ষাৎ পেয়ে তিনবার আলোচনায় বসেছি। এর বাইরে আর কোনো পথ ছিল না।

সাক্ষাৎকারে ফখরুল জানিয়েছেন, তার মনে হয়েছে ভারতীয় কূটনীতিকরা বিএনপি নেতাদের সঙ্গে সম্পর্ক ও আলোচনায় আগ্রহী নয়, কারণ তারা শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারকে বিচলিত করতে চায় না। 

আমরা হতাশ হয়েছিলাম। বিজেপির সাধারণ সম্পাদক রাম মাধবের সঙ্গে আগস্টে ব্যাংককে বৈঠকের চেষ্টা করেছিলাম। কিন্তু ভারতীয় পক্ষ তাতে সাড়া দেয়নি, বরং তারা নীরব ছিলেন বললেন ফখরুল।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস তাদের সাক্ষাৎকারভিত্তিক প্রতিবেদনে বিএনপি সরকারের আমলে সংঘটিত সংখ্যালঘু নির্যাতন ও ভারতবিরোধী বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের প্রসঙ্গ উল্লেখ করেছে। তারা লিখেছে, বাংলাদেশের অনেকেরই মনে আছে এখনো ২০০১ থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে বিএনপির সর্বশেষ শাসনামলে ২০০১ সালে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর হামলা ও ভারতবিরোধী কর্মকাণ্ডের কথা। সূত্রকে উদ্ধত করে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় কূটনীতিকরা মনে করেন ক্ষমতায় থাকার সময় বিএনপি যা করেছে সেজন্য তাদের ‘প্রায়শ্চিত্ত’ করা উচিত।

তবে ফখরুল ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে বলেছেন, আমরা ভারতের বন্ধুত্ব চাই। ভারত আমাদের সম্পর্কে যে ধারণা রাখে আমরা তার উল্টো। আমরা সাম্প্রদায়িকতা-মৌলবাদে বিশ্বাস করি না। এটা একটি মিথ্যা ধারণা যে, আমরা ভারতবিরোধী। এটা আওয়ামী লীগের পরিকল্পিত প্রচারণা। 

আমরা ভারতের কাছাকাছি আসার চেষ্টা করছি। আমাদের চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া ২০১২ সালে দিল্লি সফর করেছেন। ২০১৪ সালে বিজেপি ক্ষমতায় আসার পর আমরা ভেবেছিলাম পরিস্থিতির উন্নতি হবে। মোদির সঙ্গে খালেদার বৈঠক খুব ইতিবাচক ছিল। কিন্তু এরপর আর কিছু ঘটেনি, কোনো অগ্রগতিই হয়নি- এসব কথা সাক্ষাৎকারে বলেছেন ফখরুল।

আর ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস তাদের সাক্ষাৎকারভিত্তিক প্রতিবেদনে ফখরুলকে ‘বাস্তববাদী নেতা’ হিসেবে আখ্যা দিয়েছে।

নিউজওয়ান২৪/জেডএস