ঢাকা, ১৫ আগস্ট, ২০২০
সর্বশেষ:
সেহরি ও ইফতারের সময় সূচি : ঢাকায় প্রথম রোজার সেহরির শেষ সময় রাত ৪টা ৫ মিনিটে আর ইফতার হবে সন্ধ্যা ৬টা ২৮ মিনিটে। আইইডিসিআর এর করোনা কন্ট্রোল রুম (০১৭০০৭০৫৭৩৭) অথবা হটলাইন নম্বরে (০১৯৩৭১১০০১১, ০১৯৩৭০০০০১১, ০১৯২৭৭১১৭৮৪, ০১৯২৭৭১১৭৮৫, ০১৯৪৪৩৩৩২২২, ০১৫৫০০৬৪৯০১–০৫) যোগাযোগ করা যাবে। এ ছাড়া করোনাসংক্রান্ত তথ্য জানতে বা সহযোগিতা পেতে স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ এবং ৩৩৩ নম্বরে ফোন করা যাবে। অনলাইনে করোনা নিয়ে যোগাযোগ করতে আইইডিসিআরের ই-মেইল [email protected] এবং ফেসবুক পেজে (Iedcr,COVID19 Control Room) যোগাযোগ করা যাবে। জরুরি প্রয়োজনে কল করুন- ৯৯৯

ফারুক হত্যাকারী দুই রোহিঙ্গা ‘ডাকাত’ বন্দুকযুদ্ধে নিহত

কক্সবাজার সংবাদদাতা

প্রকাশিত: ১১:০৬, ২৪ আগস্ট ২০১৯  

রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের হাতে নিহত যুবলীগ নেতা ওমর ফারুক        -ফাইল ছবি

রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের হাতে নিহত যুবলীগ নেতা ওমর ফারুক -ফাইল ছবি

যুবলীগ সভাপতি ওমর ফারুক হত্যায় অভিযুক্ত দুই রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হয়েছে। পুলিশের একটি দল গতকাল (শুক্রবার) দিবাগত রাতে ফারুক হত্যা মামলার আসামিদের ধরতে টেকনাফের হ্নীলা জাদিমুড়া পাহাড়ের পাদদেশে গেলে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে বলে পুলিশ জানায়। এ ঘটনায় পুলিশের তিন সদস্য আহত হয়। 

নিহত দুই রোহিঙ্গা হচ্ছে, মিয়ানমারের আকিয়াব জেলার মংডু এলাকার সব্বির আহমেদের ছেলে মুহাম্মদ শাহ (৩৮) ও একই জেলার রাসিদং থানা এলাকার সিলখালির আবদুল আজিজের ছেলে আবদু শুক্কুর (২৫)। শাহ ও শুক্কুর উভয়েই হ্নীলার জাদিমুড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বাসিন্দা ছিল।

টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ জানান, গত বৃহস্পতিবার রাতে ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি ফারুককে বাড়ির সামনে থেকে তুলে নিয়ে হত্যা করে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীরা। এ ঘটনায় দায়ের করা হত্যা মামলার পলাতক আসামিরা জাদিমুড়া পাহাড়ের পাদদেশে অবস্থান করছে- এমন সংবাদে তদন্ত কর্মকর্তা এসআই রাসেল আহমদ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে শুক্রবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে অভিযানে যান। ঘটনাস্থলে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে আসামিরা গুলি করতে থাকে। এতে এসআই মনসুর, এএসআই জামাল ও কনস্টেবল লিটন গুলিবিদ্ধ হন। পরে পুলিশও পাল্টা ৪০ রাউন্ড গুলি করে। একপর্যায়ে সন্ত্রাসীরা পিছু হটে পাহাড়ের দিকে পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থলে তল্লাশি চালিয়ে ফারুক হত্যা মামলার আসামি মুহাম্মদ শাহ ও আব্দুর শুক্কুরকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পাওয়া যায়। এ সময় দুটি এলজি (আগ্নেয়াস্ত্র), ৯টি শটগানের তাজা কার্তুজ ও ১২ রাউন্ড কার্তুজের খোসাও উদ্ধার হয়। ওসি প্রদীপ আরও জানান, বন্দুকযুদ্ধের ঘটনায় পৃথক মামলা করা হচ্ছে।
নিউজওয়ান২৪.কম/আরকে

আরও পড়ুন
স্বদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত