ঢাকা, ২০ নভেম্বর, ২০১৯
সর্বশেষ:
জরুরি প্রয়োজনে কল করুন- ৯৯৯ আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন ডিসেম্বরে হেল্পলাইন ১৬২৬৩ এ কল করলেই ডাক্তারের পরামর্শ

প্লেনে পর্নো তারকার সঙ্গে অভিসার, কুয়েতি পাইলট সাসপেন্ড

সাতরং ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৯:১৪, ৬ ডিসেম্বর ২০১৫   আপডেট: ১১:০৮, ১৮ মে ২০১৬

উড়ন্ত প্লেনের ককপিটে এক পর্নো তারকাকে প্রবেশ করতে দেওয়ার দায়ে কুয়েত এয়ারওয়েজ তার এক পাইলটকে সাসপন্ডে করেছে।

এ ঘটনা অবশ্য ঘটে গত জুলাইয়ের শেষ দিকে। তবে এর ‘তিক্ত ফলটি’ প্রকাশ করতে একটু সময়ই নিয়ে নিল যেন মধ্যপ্রাচ্যের দেশটি। রোববার এমিরেটস২৪৭ জানায়, মধ্যপ্রাচ্যের তেলসমৃদ্ধ ধনী দেশটির ওই পাইলট প্লেনে ব্রিটিশ এক নারী পর্নো তারকা ২৪ বছর বয়সী খোল খানকে দেখতে পান। এসময় তার সঙ্গে ছিলেন আরেক লাস্যময়ী তরুণী। এরপর তিনি একজন স্টুয়াড্রেসের মাধ্যমে তাদেরকে ককপিটে নিয়ে যান এবং তাদের সঙ্গে সিগারেট ফোকেন, মদ্যপানও করেন। এমনকি আকাশযান চালক তাদেরকে গান গেয়েও শোনান। চমকের আরও কিছু ছিল। খোল খান প্লেনটি অটোপাইলটে চলা অবস্থায় কন্ট্রোল প্যানেলের বোতামও নাড়াচাড়া করেন পাইলটের অনুমতি নিয়ে। এসব ঘটনার ভিডিও রেকর্ডও করেন পর্নো তারকা।

এসব ঘটনা যখন ঘটছিল তখন উড়োজাহাজটি ছিল আটলান্টিকের ওপর। কুয়েত এয়ারওয়েজের ওই ফ্লাইট লন্ডনের হিথরো থেকে নিউইয়র্কের পথে যাচ্ছিল। সন্দেহ করা করা হচ্ছে, সিগারেট, মদ্যপান, গান আর কন্ট্রোল প্যানেল নিয়ে নাড়াচাড়ার বিনিময়ে পাইলট সাহেব পর্নো তারকার কাছ থেকে বিশেষ কোনো সুবিধা নিয়ে থাকতে পারেন।

কুয়েত এয়ারওয়েজ সূত্রে জানা গেছে, উড়োজাহাজের যাত্রীদের ককপিটে প্রবেশাধিকার দিয়ে ওই পাইলট এতদসংক্রান্ত কঠোর আইন ভঙ্গ করেছেন। ২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর টুইনটাওয়ার হামলার ঘটনার পর থেকে কোনো বাণিজ্যিক প্লেনের ককপিটে যাত্রীদের প্রবেশাধিকার কঠোরভাবে নিষিদ্ধ করা হয়।

এছাড়া ককপিটের ভেতরে ধূমপানের নিষেধাজ্ঞাও ভঙ্গ করেন পাইলট যা জারি করা হয় ২০০৭ সালে।

কুয়েতি পাইলটের এই অনৈতিক কাণ্ডের সচিত্র প্রতিবেদন ছাপা হয়েছিল বিটিশ ট্যাবলয়েড ডেইলি মেইল ও ডেইলি স্টারসহ বেশকিছু মিডিয়ায়। পরে কুয়েতি কর্তৃপক্ষ তদন্ত করে ঘটনার সত্যতা পায়। তদন্ত প্রতিবেদন সূত্রে জানা গেছে, উড়োজাহাজটি যখন আকাশের ৩৩ হাজার ফিট উপরে তখন ওই পর্নো তারকা ও তার সঙ্গী অপর এক নারীকে ককপিটে নিয়ে যান পাইলট মহাশয়।

দেশটির যোগাযোগ মন্ত্রণালয় উড্ডয়ন-নিয়মনীতি ভঙ্গের দায়ে ওই উড়োজাহাজ চালককে শাস্তি দিয়েছে তার পদ থেকে সাসপন্ডে তথা পদাবনতি ঘটিয়ে। এখন থেকে তিনি আর পাইলট নন, ‘অ্যাসিস্ট্যান্ট পাইলট’।   

তবে অপরাপর কেবিন ক্রুদের কোনো শাস্তি দেওয়া হয় নাই। কারণ, ওই দুই নারী ভেতরে ঢোকার পর থেকে ককপিটের ভেতরে কি কি ঘটেছে তারা সে সম্পর্কে ওয়াকিবহাল নয়।   

অভিযুক্ত পাইলটের নাম-পরিচয় প্রকাশ করেনি কর্তৃপক্ষ।

নিউজওয়ান২৪.কম/এমআর 

অর্থ-কড়ি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত