ঢাকা, ১২ এপ্রিল, ২০২১
সর্বশেষ:
দেশে প্রথমবারের মতো সংবাদ পাঠ করলেন ট্রান্সজেন্ডার নারী ২৫ মার্চ চট্টগ্রামে অনেককে জিয়া গুলি করে হত্যা করে: প্রধানমন্ত্রী

পৃথিবীর নিরাপদ থাকা নিয়ে সুসংবাদ জানালো নাসা

ডেস্ক রির্পোট

প্রকাশিত: ০০:০৫, ২৯ মার্চ ২০২১  

সংগৃহীত ছবি

সংগৃহীত ছবি

অ্যাপোফিস বা বিপজ্জনক গ্রহাণু নিয়ে কত আশঙ্কা। পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসছে, আঘাত হানবে, গতি আরো বাড়িয়ে দিয়েছে। উদ্বেগের শেষ নেই বিজ্ঞানীদের। কিন্তু নাসা এবার এই আশঙ্কা গুঁড়িয়ে দিয়েছে। মহাকাশ গবেষণা সংস্থাটি বলছে, আগামী অন্তত ১০০ বছর পর্যন্ত গ্রহাণু থেকে নিরাপদ গ্রহ।

বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা নিশ্চিত করেছে, আগামী অন্তত ১০০ বছর পর্যন্ত গ্রহাণু থেকে পৃথিবী নিরাপদ। এ ধরনের কোনো হুমকি নেই। ২০৬৮ সালে যেটি হওয়ার কথা ছিল, তাও আশঙ্কার মধ্যে নেই। এ খবরে আর্থলিংসরা অর্থাৎ পৃথিবীবাসী অন্তত স্বস্তির নিশ্বাস ফেলতে পারে।

নাসার মতে, পৃথিবীর জন্য সবচেয়ে বিপজ্জনক গ্রহাণুর মধ্যে একটি অ্যাপোফিস। ২০০৪ সালে গ্রহাণুটির আবিষ্কারের পর এ কথা জানিয়েছিল সংস্থাটি। এরপর অ্যাপোফিস নিয়ে নানা আশঙ্কার সৃষ্টি হয়। বিজ্ঞানীদের আশঙ্কা ছিল, পৃথিবীতে আঘাত হানবে এ গ্রহাণু। এমনকি গতি বাড়িয়ে খুব দ্রুতগতিতে আঘাত হানতে পারে বলেও আশঙ্কা দেখা দেয়।

বিবিসি বলছে, প্রথমে আশঙ্কা করা হয়েছিল ২০২৯ সালের মধ্যে পৃথিবীর খুব কাছে চলে আসবে অ্যাফোপিস। এরপর পূর্বাভাস দেওয়া হয়, ২০৩৬ সালের মধ্যে আঘাত হানতে পারে। একপর্যায়ে তাও বাতিল হয়ে যায়। নতুন করে আশঙ্কা করা হয়, ২০৬৮ সালের মধ্যে অ্যাপোফিসের ছোট কোনো আঘাত অপেক্ষা করছে পৃথিবীবাসীর জন্য। এবার এই আশঙ্কাও উড়িয়ে দিল নাসা। সংস্থাটি নতুন একটি গবেষণায় এ হুমকিও প্রত্যাখ্যান করেছে।

নাসায় পৃথিবীর নিকটবর্তী বস্তু নিয়ে অধ্যয়নরত বিজ্ঞানী ডেভিড ফার্নোচিয়া শুক্রবার একটি বিবৃতিতে বলেন, ২০৬৮ সালের মধ্যে পৃথিবীতে গ্রহাণুর আঘাতের হুমকি, আর কোনো আশঙ্কার মধ্যে নেই। এমনকি আমাদের গণনাগুলো বলছে, আগামী ১০০ বছরের মধ্যেও এ ধরনের কোনো হুমকি নেই।

‘অ্যাপোফিস পৃথিবীর খুব কাছাকাছি পৌঁছে যাবে, এমনকি বড় ধরনের আঘাত হানবে’ এ ধরনের আশঙ্কা দেখা দিলে গ্রহাণুটি নিয়ে ব্যাপক বিশ্লেষণ করা হয়। জানার বিষয় হচ্ছে, অ্যাপোফিস গ্রহাণুটির নামকরণ করা হয়েছে মিশরের প্রাচীন ‘গড অব কেওস এবং ডার্কনেসের’ নামে।

মোবাইল-পিসি-টেক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত