ঢাকা, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
সর্বশেষ:
আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন ডিসেম্বরে হেল্পলাইন ১৬২৬৩ এ কল করলেই ডাক্তারের পরামর্শ ডেঙ্গি নিয়ন্ত্রণে একটি সমন্বিত পদক্ষেপ খুবই জরুরি

পরকীয়ার বিষ: ঘুমন্ত ‘ভাতিজার’ চরম সর্বনাশ করলেন ‘চাচী’!

নাটোর সংবাদদাতা

প্রকাশিত: ০৯:৪০, ৩১ আগস্ট ২০১৯  

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

ঘটনা চঞ্চল্যকর। গভীর রাতে মিটুল (২৮) ঘুমের রাজ্যে ছিল। এসময় তার গোপনাঙ্গ ধারালো ব্লেড দিয়ে কেটে নেওয়া হয়। নাটোর জেলার সিংড়ার রামানন্দ খাজুরা ইউনিয়নের বেগুনবাড়ি গ্রামের মেয়ে কুলসুম (৩২) এ ঘটনা ঘটান। জানা গেছে, ঘটনার শিকার মিটুল সম্পর্কে কুলসুমের স্বামী। অনুসন্ধানে বেরিয়ে এসেছে চাঞ্চল্যকর সব তথ্য। জানা গেছে, বর্তমান স্বামী মিটুল ছিলেন কুলসুমের সাবেক স্বামীর ভাতিজা।  

হাসপাতাল ও স্থানীয় সূত্র জানায়, কুলসুমের বর্তমান স্বামী মিটুল একসময় তার সাবেক স্বামীর ভাতিজা ছিলেন। রিজের চেয়ে চার বছরের বড় এবং সম্পর্কে চাচী কুলসুমের সঙ্গে একসময় অবৈধ প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এর সমান্তরালে সংসারে স্বামীর সঙ্গে অশান্তি শুরু হয় কুলসুমের। বনিবনা না হওয়ার একপর্যায়ে মিটুলের চাচার কাছ থেকে তালাকের মাধ্যমে ছাড়াছাড়ি হয় তার। এরপর ঘরে ৫ বছরের একটি ছেলে সন্তান রেখে কুলসুম ঢাকায় গিয়ে গার্মেন্টে চাকরি নেয়। সেখানে কুলসুম বেগম তার সদ্য তালাকপ্রাপ্ত স্বামীর আপন ভাতিজা মিটুলকে বিয়ে করে নয়া সংসার পাতেন।

বিয়ের পর মিটুল-কুলসুম ঢাকাতে ঘর-সংসার করছিলেন। তবে সম্প্রতি ঈদের ছুটিতে সিংড়ায় গ্রামের বাড়িতে নববধূকে নিয়ে যান মিটুল। কিন্তু মিটুলের আত্মীয়-স্বজন এই সম্পর্ক মেনে না নেওয়ায় কলহের সৃষ্টি হয়। তবে শালিস-বৈঠকে মীমাংসা হয়। তারা সেখানেই থাকতে থাকেন।

কুলসুমের অভিযোগ, সিংড়ায় এসে আরেক নারীর সঙ্গে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েন মিটুল। এ নিয়ে তাদের মধ্যে ঝগড়া-বিবাদ শুরু হয়। এরই জের ধরে গত বুধবার রাতে স্বামী মিটুল ঘুমিয়ে পড়লে ধারালো ব্লেড দিয়ে তার পুরুষাঙ্গ কেটে ফেলেন কুলসুম। বর্তমানে আশঙ্কাজনক অবস্থায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মিটুল।

এদিকে, ঘটনার পর পুলিশ কুলসুমকে আটক করে। পরে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী শেষে আদালতে পাটানো হয় তাকে।

নিউজওয়ান২৪.কম/আরকে

আরও পড়ুন
অপরাধ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত