ঢাকা, ২৮ মে, ২০২০
সর্বশেষ:
সেহরি ও ইফতারের সময় সূচি : ঢাকায় প্রথম রোজার সেহরির শেষ সময় রাত ৪টা ৫ মিনিটে আর ইফতার হবে সন্ধ্যা ৬টা ২৮ মিনিটে। আইইডিসিআর এর করোনা কন্ট্রোল রুম (০১৭০০৭০৫৭৩৭) অথবা হটলাইন নম্বরে (০১৯৩৭১১০০১১, ০১৯৩৭০০০০১১, ০১৯২৭৭১১৭৮৪, ০১৯২৭৭১১৭৮৫, ০১৯৪৪৩৩৩২২২, ০১৫৫০০৬৪৯০১–০৫) যোগাযোগ করা যাবে। এ ছাড়া করোনাসংক্রান্ত তথ্য জানতে বা সহযোগিতা পেতে স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ এবং ৩৩৩ নম্বরে ফোন করা যাবে। অনলাইনে করোনা নিয়ে যোগাযোগ করতে আইইডিসিআরের ই-মেইল [email protected] এবং ফেসবুক পেজে (Iedcr,COVID19 Control Room) যোগাযোগ করা যাবে। জরুরি প্রয়োজনে কল করুন- ৯৯৯

ট্রাম্পকে নিয়ে মজা! ৪ লাখ ডলার দণ্ড এবিসি’র

বিশ্ব সংবাদ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১:৫৯, ১৭ আগস্ট ২০১৯  

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও আলোচিত সেই অ্যালার্ট মেসেজ               -ফাইল ফটো

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও আলোচিত সেই অ্যালার্ট মেসেজ -ফাইল ফটো

যুক্তরাষ্ট্রের জনপ্রিয় টিভি চ্যানেল এবিসির মধ্যরাতের টক শো জিমি কিমেল লাইভে ‘প্রেসিডেন্সিয়াল অ্যালার্ট টোন’ বাজানোয় ৩ লাখ ৯৫ হাজার ডলার জরিমানা করা হয়েছে। বিবিসি জানায়, জরুরি মুহূর্তে যুক্তরাষ্ট্রের জনগণকে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বার্তা পৌঁছে দিতে চালু করা হয়েছে ওই অ্যালার্ট টোন।

কিন্তু প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে নিয়ে ব্যঙ্গ করতে গিয়ে গতবছর ৩ অক্টোবর জিমি কিমেল লাইভে তিনবার ওই অ্যালার্ট টোন বাজানো হয়। এর ভিত্তিতে যুক্তরাষ্ট্রের সংশ্লিষ্ট নিয়ন্ত্রক সংস্থা এ্ জরিমানা করে এবিসিকে।

প্রসঙ্গত, যেদিন ওই অনুষ্ঠানটি সম্প্রচার করা হয় সেদিনই প্রথম পরীক্ষামূলকভাবে ওই অ্যালার্ট পাঠানো হয় যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের কাছে। ২০ কোটি মার্কিনির স্মার্টফোনে সেদিন সেই পরীক্ষামূলক ‘অ্যালার্ট’ পৌঁছে। ওই টোন বেজে ওঠার সঙ্গে সঙ্গে একটি নোটিফিকেশন ফোনের স্ক্রিনে আসে যেখানে লেখা ছিল— এটা ন্যাশনাল ওয়্যারলেস ইমার্জেন্সি অ্যালার্ট সিস্টেমের একটি পরীক্ষামূলক বার্তা। মেসেজটি পেয়ে কিছু করার প্রয়োজন নেই প্রাপকের। শত্রুর ক্ষেপণাস্ত্র হামলা, বড় কোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগ বা সন্ত্রাসী হামলার মতো ঘটনায় জনগণকে সতর্ক করতে ওই অ্যালার্ট চালু করে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল ইমার্জেন্সি ম্যানেজমেন্ট এজেন্সি-ফেমা। সে ধরনের জরুরি কোনো পরিস্থিতি তৈরি হলে কেবল প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ফেমাকে ওই অ্যালার্ট পাঠানোর নির্দেশ দিতে পারবেন।

এদিকে, যুক্তরাষ্ট্রে টেলিভিশন চ্যানেল নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফেডারেল কমিউনিকেশন কমিশন-এফসিসি বলেছে, প্রেসিডেন্সিয়াল অ্যালার্টের টোন জিমি কিমেলের টক শোতে ব্যবহার করে এবিসি সম্প্রচার আইন ভেঙ্গেছে।

এফসিসির আইন অনুযায়ী, টেলিভিশন চ্যানেলগুলো জরুরি সতর্কবার্তার শব্দ কোনো অনুষ্ঠানে ব্যবহার করতে পারবে না। মানুষ যাতে ওই শব্দ শুনে সত্যিকারের অ্যালার্ট ভেবে আতঙ্কিত হয়ে না পড়ে, সেজন্যই এ নিয়ম। তবে এবিসি তাদের তুমুল জনপ্রিয় জিমি কিমেল লাইভ শোতে প্রেসিডেন্সিয়াল অ্যালার্টের টোন শোনানোর কথা স্বীকার করলেও আত্মপক্ষ সমর্থন করে বলেছে, তারা ভেবেছিল এই অ্যালার্টের টোন বাজানোর ওপর কোনো বিধিনিষেধ নেই।
নিউজওয়ান২৪.কম/এসএমএস

আরও পড়ুন
বিশ্ব সংবাদ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত