ঢাকা, ০৭ আগস্ট, ২০২০
সর্বশেষ:
সেহরি ও ইফতারের সময় সূচি : ঢাকায় প্রথম রোজার সেহরির শেষ সময় রাত ৪টা ৫ মিনিটে আর ইফতার হবে সন্ধ্যা ৬টা ২৮ মিনিটে। আইইডিসিআর এর করোনা কন্ট্রোল রুম (০১৭০০৭০৫৭৩৭) অথবা হটলাইন নম্বরে (০১৯৩৭১১০০১১, ০১৯৩৭০০০০১১, ০১৯২৭৭১১৭৮৪, ০১৯২৭৭১১৭৮৫, ০১৯৪৪৩৩৩২২২, ০১৫৫০০৬৪৯০১–০৫) যোগাযোগ করা যাবে। এ ছাড়া করোনাসংক্রান্ত তথ্য জানতে বা সহযোগিতা পেতে স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ এবং ৩৩৩ নম্বরে ফোন করা যাবে। অনলাইনে করোনা নিয়ে যোগাযোগ করতে আইইডিসিআরের ই-মেইল [email protected] এবং ফেসবুক পেজে (Iedcr,COVID19 Control Room) যোগাযোগ করা যাবে। জরুরি প্রয়োজনে কল করুন- ৯৯৯

গুগল ম্যাপ দেখে ড্রাইভিং, ৩০ ফুট নিচে গাড়ি!

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২০:০৭, ৯ ডিসেম্বর ২০১৮  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

একেই বলে প্রযুক্তির বিপত্তি। বিজ্ঞানের মস্তিষ্কহীনতার বিপদও বলা যেতে পারে। আর সেই বিপদে পড়ে মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরলেন তিন বন্ধু। গুগল ম্যাপ দেখে চালানোর সময় গাড়িসহ ৩০ ফুট গভীর খাদের পানিতে পড়ে গেলেন তিনজনই। স্থানীয়রা উদ্ধার করায় প্রাণে বাঁচলেও তিনজনেরই বুক ও মাথায় আঘাত পেয়েছেন।

বৃহস্পতিবার গভীর রাতে ভারতের কেরলের পালামট্টম-অবলিচল রোডের ইনজাথোট্টিতে এই ঘটনা ঘটে। আহত গোকুলদাস, ইসাহক এবং মুস্তফা ত্রিশূরের ওয়াক্কানচেরির বাসিন্দা। ত্রিশূর থেকে মুন্নার যাওয়ার জন্য শর্টকাট এই রাস্তা ধরেছিলেন তারা। অচেনা রাস্তা হওয়ায় গুগল ম্যাপ দেখে গাড়ি চালাচ্ছিলেন।

ওই যুবকরা জানিয়েছেন, পালামট্টম-অবলিচল রোড ধরে যাওয়ার সময় হঠাৎই মাঝ রাস্তার উপর একটি বিশাল খাদ নজরে আসে তিন জনের। কিন্তু তখন খাদের প্রায় কিনারায় চলে এসেছে গাড়ি। 

চালকের আসনে থাকা যুবক ব্রেক কষে গাড়ি থামানোর চেষ্টা করেও পারেননি। নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে তিন জনকে নিয়ে গাড়িটি পড়ে যায় খাদে। তার মধ্যে প্রায় আট ফুট গভীর পানি ছিল। তবে দুর্ঘটনার সময় গাড়ির দরজা খুলে যাওয়ায় তিনজনই গাড়ি থেকে বেরিয়ে আসতে সক্ষম হন।

কিন্তু কেউই সাঁতার জানতেন না। তাই গাড়ির উপর দাঁড়িয়ে সাহায্যের জন্য অপেক্ষা করছিলেন। সেই সময় একটি রবার কারখানায় কাজ করে বাইকে ফিরছিলেন ছয়জন। তারাই নিজেদের পরনের ধুতি খুলে গিঁট দিয়ে তিন যুবককে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি বাড়িতে নিয়ে যান। সেখানে তাদের প্রাথমিক সেবা দিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। 

কিন্তু মাঝ রাস্তার মধ্যে গর্ত এলো কোথা থেকে? স্থানীয় প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, ওই জায়গায় একটি ব্রিজ ছিল। কিছুদিন আগেই সেটি ভেঙে নতুন করে তৈরির সিদ্ধান্ত নেয় স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েত। 

স্থানীয়দের অভিযোগ, ব্রিজ ভাঙা হলেও রাস্তার দু'দিকে ঠিকমতো সতর্কবার্তা দেওয়া হয়নি। এর ফলে মাঝে মধ্যেই ছোটখাট দুর্ঘটনা ঘটছে। এমনকি, এই দুর্ঘটনার কিছুক্ষণ পরই আরও একটি গাড়ি গুগল ম্যাপ দেখে ওই গর্তের কাছে চলে আসে। স্থানীয়রাই তাদের অন্যদিক দিয়ে যেতে বলেন।

নিউজওয়ান২৪/এএস

মোবাইল-পিসি-টেক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত