ঢাকা, ০৭ এপ্রিল, ২০২০
সর্বশেষ:
আইইডিসিআর এর করোনা কন্ট্রোল রুম (০১৭০০৭০৫৭৩৭) অথবা হটলাইন নম্বরে (০১৯৩৭১১০০১১, ০১৯৩৭০০০০১১, ০১৯২৭৭১১৭৮৪, ০১৯২৭৭১১৭৮৫, ০১৯৪৪৩৩৩২২২, ০১৫৫০০৬৪৯০১–০৫) যোগাযোগ করা যাবে। এ ছাড়া করোনাসংক্রান্ত তথ্য জানতে বা সহযোগিতা পেতে স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ এবং ৩৩৩ নম্বরে ফোন করা যাবে। অনলাইনে করোনা নিয়ে যোগাযোগ করতে আইইডিসিআরের ই-মেইল [email protected] এবং ফেসবুক পেজে (Iedcr,COVID19 Control Room) যোগাযোগ করা যাবে। জরুরি প্রয়োজনে কল করুন- ৯৯৯

গরু ৩ কেজির বেশি মল ছাড়লেই মালিককে গাধার পিঠে চড়িয়ে শাস্তি!

সাতরং ডেস্ক

প্রকাশিত: ০২:৩১, ৪ ডিসেম্বর ২০১৬   আপডেট: ২২:৩৭, ৭ ডিসেম্বর ২০১৬

নগর কর্তৃপক্ষকে ব্যঙ্গ করে পত্রিকায় প্রকাশিত কার্টুন

নগর কর্তৃপক্ষকে ব্যঙ্গ করে পত্রিকায় প্রকাশিত কার্টুন

‘নোটবন্ধ’ (৫০০ ও ১০০০ রুপির মুদ্রা বাতিল) কাণ্ডের জোয়ারে ভারতে ব্যাংক থেকে কে কতো টাকা তুলতে পারবেন তার ওপর বিধি নিষেধ আরোপ করা হয়। এর পক্ষে-বিপক্ষে নানা মুনী-ঋষির নানা মত রয়েছে।

তবে যদি বলা হয় যে আপনার পোষা গরু-মহিষ প্রতিদিন কী পরিমাণ মল ত্যাগ করবে বা লাদাবে তাও সরকার ঠিক করে দেবে! এই বিষয়ের পক্ষে-বিপক্ষে কে কী বলবে তা পরের কথা- কিন্তু একটা বিষয় পরিষ্কার, তা হচ্ছে কিছুক্ষণ নির্বাক হয়ে থাকবেন সবাই।

বাস্তবে কিন্তু এমনি ঘটনা ঘটেছে অর্থাৎ গৃহপালত গরু-মহিষ দৈনিক কী পরিমাণ মল ত্যাগ করবে তা নির্দিষ্ট করে দিয়েছে ভারতের গুজরাটের অমরেলি নগর কর্তৃপক্ষ। এ ঘটনায় তাজ্জব শহরবাসী থেকে নিয়ে পুরো ভারত।

পয়লা ডিসেম্বর থেকে ওই শহরে আইন চালু হয়েছে, গৃহপালিত প্রতিটি গরু-মহিষ দিনে নির্ধারিত স্থানে ৩ কেজির বেশি গোবর ত্যাগ করতে পারবে না। বাছুরদের ক্ষেত্রে তা আরও কম- মাত্র এক কেজি। এর বেশি গোবর ত্যাগ করলেই পশুর মালিককে গাধার পিঠে বসিয়ে এলাকায় ঘুরিয়ে সাজা দেওয়া হবে! প্রাচীন যুগের চরম অপমানজনক এই শাস্তির ভয়ের বিষয়টি পশুরা না জানলেও তাদের মালিকদের ঘুম হারাম কের দিয়েছে বলা যায়।

তবে এমন আজব আইন আর শাস্তি সম্পর্কে যে যাই ভাবুক- নগর কর্তৃপক্ষ বলছে এই নিয়ম করা হয়েছে কেন্দ্র সরকারের ‘স্বচ্ছ ভারত সুস্থ ভারত’ নামক অভিযানের সমর্থনে। প্রসঙ্গত কেন্দ্রে বিজেপি সরকার ক্ষমতায় আর ছোট্ট আমরেলি শহরের কর্তা হচ্ছেন কংগ্রেসি।

জানা গেছে- এই ‘আইন’ সুচারুভাবে কার্যকরে শহর কর্তৃপক্ষ একটি ফ্লাইং-স্কোয়াড গঠন করেছে যাদের কাজ হচ্ছে জনগণের গরু-মহিষের ত্যাগ করা গোবরের তাৎক্ষণিক ওজন ও সাইজ পরিমাপ করা।

স্থানীয় বিজেপি নেতা ডা. ভারতভাই কানাবার কংগ্রেসদলীয় নগরশাসকের এমন সিদ্ধান্তকে ‘বিচিত্র এবং দুর্ভাগ্যজনক’ বলে সমালোচনা করেছেন।

তবে অমরেলি শহর কর্তপক্ষের প্রধান নির্বাহী ও কংগ্রেস নেতা অলকা গোন্ডালিয়া জানান, নয়া এই কানুন জারির বিষয়ে তিনি জনতার মতামতও চেয়েছেন যা অচিরেই প্রকাশ করা হবে। নিজেদের পদক্ষেপের পক্ষে সাফাই গেয়ে তিনি আরও জানান- রাস্তা-ঘঅটে পশুর মলমূত্র থেকে ছড়ানো দুর্গন্ধ-রোগবালাই ঠেকাতে এর আগে নেওয়া পদক্ষেপগুলোয় কোনো সুফল আসেনি। এ কারণেই এবার এ ধরনের কায়দা করা হয়েছে।

তবে একটি টিভি চ্যানেল এ ঘটনায় মন্তব্য করেছে- কংগ্রেসের রাজনীতি এখন গোবরে পড়ে লেজে-গোবরে অবস্থায় পড়েছে। এনবিটি

নিউজওয়ান২৪.কম/একে

অর্থ-কড়ি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত