ঢাকা, ২৮ মে, ২০২০
সর্বশেষ:
সেহরি ও ইফতারের সময় সূচি : ঢাকায় প্রথম রোজার সেহরির শেষ সময় রাত ৪টা ৫ মিনিটে আর ইফতার হবে সন্ধ্যা ৬টা ২৮ মিনিটে। আইইডিসিআর এর করোনা কন্ট্রোল রুম (০১৭০০৭০৫৭৩৭) অথবা হটলাইন নম্বরে (০১৯৩৭১১০০১১, ০১৯৩৭০০০০১১, ০১৯২৭৭১১৭৮৪, ০১৯২৭৭১১৭৮৫, ০১৯৪৪৩৩৩২২২, ০১৫৫০০৬৪৯০১–০৫) যোগাযোগ করা যাবে। এ ছাড়া করোনাসংক্রান্ত তথ্য জানতে বা সহযোগিতা পেতে স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ এবং ৩৩৩ নম্বরে ফোন করা যাবে। অনলাইনে করোনা নিয়ে যোগাযোগ করতে আইইডিসিআরের ই-মেইল [email protected] এবং ফেসবুক পেজে (Iedcr,COVID19 Control Room) যোগাযোগ করা যাবে। জরুরি প্রয়োজনে কল করুন- ৯৯৯

এবার মালয়েশিয়া থেকে বিতাড়িত হচ্ছেন জাকির নায়েক!

বিশ্ব সংবাদ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১:২৮, ১৭ আগস্ট ২০১৯  

জাকির নায়েক ও মাহাথির মোহাম্মদ                  -ফাইল ফটো

জাকির নায়েক ও মাহাথির মোহাম্মদ -ফাইল ফটো

দীর্ঘদিন জন্মভূমি ভারতে নেই ইসলামি চিন্তাবিদ ও বক্তা জাকির নায়েক। কারণ, দেশে ফিরলেই গ্রেপ্তার হতে হবে তাকে। তার নামে মামলা রয়েছে দেশে। এ কারণে মালয়েশিয়ায় স্থায়ী নাগরিকত্ব নিয়ে বসবাস করছিলেন। কিন্তু এবার হয়তো হারাতে পারেন তার মালয়েশীয় নাগরিকত্ব।

সম্প্রতি তার কিছু মন্তব্যের জন্য মালয়েশিয়ায় তাকে নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়। এর সূত্র ধরেই এমন ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ। ‘জাতি বিদ্বেষমূলক মন্তব্যের’ পরিপ্রেক্ষিতেএ মুহূর্তে জরুরি পদক্ষেপ হিসেবে জাকির নায়েককে দু’দিন মালয়েশিয়ায় কোনো ধর্মীয় অনুষ্ঠানে বক্তব্য দিতে নিষেধ করা হয়েছে।

জানা গেছে, ইতোমধ্যেই দেশটিতে জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরনের ১১৫টি অভিযোগ দায়ের হয়েছে। এসব অভিযোগের তদন্তও শুরু করেছে পুলিশ। যদি প্রমাণ হয় যে, জাকিরের কোনো মন্তব্য ও কাজকর্ম দেশটির শান্তি ও সম্প্রীতির আবহে আঘাত করেছে- সেক্ষেত্রে তার নাগরিকত্ব বাতিল করবে মালয়েশিয়া।

ধর্মীয় বক্তব্য দিতে সারাবছর বিশ্ব ঘুরে বেড়ানো জাকির নায়েক দীর্ঘদিন ধরেই মালয়েশিয়ায় অবস্থান করলেও তাকে স্থায়ীভাবে বসবাসের অনুমতি দেয়া নিয়ে দেশটির মন্ত্রিসভায় বিরোধিতা জানান তিন মন্ত্রী। তারা জাকিরকে বহিষ্কারের দাবি জানিয়েছেন। শুধু তাই নয়, তার বিরুদ্ধে শান্তি বিনষ্টের অভিযোগও আনা হয়। এ প্রসঙ্গে স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলোর সঙ্গে আলাপকালে প্রধানমন্ত্রী মহাথীর মোহাম্মদ জানিয়েছেন, এই মুহূর্তে মালেশিয়া সরকার তদন্ত রিপোর্টের অপেক্ষায় আছে। জাকির নায়েক কিছুদিন আগে দেশটির সংখ্যালঘুদের উদ্দেশ্যে বিতর্কিত মন্তব্য করেছেন বলে অভিযোগ করা হয়েছে। 

প্রকাশিত খবরে জানা গেছে, এক অনুষ্ঠানে মালয়েশিয়ায় বসবাসরত চীনা বংশোদ্ভূত নাগরিকদের দেশে (চীনে) ফিরে যেতে বলেন জাকির নায়েক। তাদের মালয়েশিয়ার পুরনো অতিথি বলেও উল্লেখ করেন তিনি। কেলানতান এলাকার ওই ধর্মীয় আলোচনা সভায় জাকিরকে নিজের দেশে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানানো হয়। এর জবাবে তিনি ওই মন্তব্য করেন। একই অনুষ্ঠানে জাকির নায়েক বলেন, ভারতের সংখ্যালঘু মুসলিমদের চেয়ে মালয়েশিয়ার সংখ্যালঘু হিন্দুরা ১০০ গুণ বেশি অধিকার ভোগ করছে। প্রসঙ্গত, মালয়েশিয়ার ৬০ শতাংশ মুসলিম বাদে বাকি ৪০ শতাংশ মানুষের অধিকাংশই চীনা ও ভারতীয় বংশোদ্ভূত। তার এমন মন্তব্যকে ঘিরে সমালোচনা শুরু হয়েছে।

এর জের ধরে তাকে মালয়েশিয়া থেকে বহিষ্কারের দাবি তুলে ওই তিন মন্ত্রী বলেন, মালয়েশিয়ার মুসলিমদের সঙ্গে অমুসলিমদের দূরত্ব তৈরির উদ্দেশ্যে এমন মন্তব্য করেছেন জাকির নায়েক।

মিডিয়ায় প্রকাশিত খবর মোতাবেক জাকির নায়েকের আরেকটি মন্তব্য ছিল এমন- মালয়েশিয়ার হিন্দুরা মাহাথির মোহাম্মদের তুলনায় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির প্রতি বেশি অনুগত। জাকিরের এই মন্তব্যে প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে। এ বিষয়ে পুলিশ তাকে জেরা করবে। প্রধানমন্ত্রী মহাথির মোহাম্মদ আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেছেন, যদি এরকম কাজের বিরুদ্ধে কোনো কড়া পদক্ষেপ নেওয়া না হয় তবে সাম্প্রদায়িক চাপ বাড়বে। যা দেশের জন্য ক্ষতিকর।

আরো জানা গেছে, জাতি বিদ্বেষমূলক মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে জাকির নায়েককে দু’দিন কোন ধর্মীয় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে নিষেধ করা হয়েছে। গত তিন বছর ধরে স্থায়ী নাগরিকত্ব নিয়ে মালয়েশিয়ায় আছেন তিনি। সম্প্রতি তার একটি ভিডিও ক্লিপ নিয়ে সমালোচনা চলছে যেখানে তাকে জাতি বিদ্বেষমূলক মন্তব্য করতে দেখা গেছে বলে অভিযোগ করা হচ্ছে।
নিউজওয়ান২৪.কম/এসএমএস

আরও পড়ুন
বিশ্ব সংবাদ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত