ঢাকা, ২০ নভেম্বর, ২০১৯
সর্বশেষ:
জরুরি প্রয়োজনে কল করুন- ৯৯৯ আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন ডিসেম্বরে হেল্পলাইন ১৬২৬৩ এ কল করলেই ডাক্তারের পরামর্শ

ইখওয়ান ধ্বংস করে দেয়া হবে: সিসি

নিউজওয়ান২৪ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২:২৯, ৬ মে ২০১৪   আপডেট: ১১:১৩, ১৮ মে ২০১৬

মিশরের সামরিক অভ্যুত্থানের নায়ক ও প্রেসিডেন্ট প্রার্থী জেনারেল আব্দেল ফাত্তাহ আল-সিসি দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করে বলেছেন, তিনি নির্বাচিত হলে দেশটিতে ইখওয়ানুল মুসলিমিন নামক কোনো সংগঠনের অস্তিত্ব থাকবে না। এ ছাড়া, সংগঠনটি এখনই `মৃতপ্রায়` বলে উল্লেখ করেছেন তিনি।

 

মিশরের দুটি টেলিভিশন চ্যানেলকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি দাবি করেছেন, তাকে হত্যার দু’টি পরিকল্পনা নস্যাৎ করে দেয়া হয়েছে।মিশরের সামরিক অভ্যুত্থানের নায়ক ও প্রেসিডেন্ট প্রার্থী জেনারেল আব্দেল ফাত্তাহ আল-সিসি দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করে বলেছেন, তিনি নির্বাচিত হলে দেশটিতে ইখওয়ানুল মুসলিমিন নামক কোনো সংগঠনের অস্তিত্ব থাকবে না। এ ছাড়া, সংগঠনটি এখনই `মৃতপ্রায়` বলে উল্লেখ করেছেন তিনি।

 

মিশরের দুটি টেলিভিশন চ্যানেলকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি দাবি করেছেন, তাকে হত্যার দু’টি পরিকল্পনা নস্যাৎ করে দেয়া হয়েছে।

 

গত বছরের জুলাই মাসে এই সিসি মিশরের প্রথমবারের মতো নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ও ইখওয়ান নেতা মুহাম্মাদ মুরসিকে ক্ষমতাচ্যুত করেছিলেন। এরপর ইসলামপন্থী দলটির বিরুদ্ধে নির্মম দমন অভিযান চালিয়ে দৃশ্যত এটিকে ‘নিষ্ক্রয়’ করে দিয়ে নিজেই প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হয়েছেন। আগামী ২৬ ও ২৭ মে অনুষ্ঠেয় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে শক্ত কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকায় তাকেই মিশরের পরবর্তী প্রেসিডেন্ট বলে মনে করছেন অনেকে।

 

জেনারেল সিসি এ সাক্ষাৎকারে দাবি করেছেন, গত বছর মুরসিকে ক্ষমতাচ্যুত করা এবং তার সমর্থিত ইখওয়ানের ওপর গণহত্যা অভিযান চালানোর সময় তার কোনো রাজনৈতিক উচ্চাভিলাষ ছিল না। কিন্তু এখন `জাতির স্বার্থে` তাকে এ `গুরুদায়িত্ব` কাঁ তুলে নিতে হচ্ছে। ইখওয়ান প্রায় অস্তিত্বহীন হয়ে পড়েছে বলে উল্লেখ করে সিসি বলেন, “আমি আপনাদের বলতে চাই আমি ইখওয়ানকে শেষ করে দেইনি বরং, আপনারা, মিশরের জনগণই এটিকে শেষ করে দিয়েছেন।” আপনি নির্বাচিত হলে কি ইখওয়ানের ‘অস্তিত্ব শেষ’ কের দেয়া হবে- এমন প্রশ্নের জবাবে ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেন্ট মুরসির হাত ধরে সেনাপ্রধান হওয়া এই জেনারেল বলেন, “হ্যা তাই।”

 

গত বছরের জুলাই মাসে এই সিসি মিশরের প্রথমবারের মতো নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ও ইখওয়ান নেতা মুহাম্মাদ মুরসিকে ক্ষমতাচ্যুত করেছিলেন। এরপর ইসলামপন্থী দলটির বিরুদ্ধে নির্মম দমন অভিযান চালিয়ে দৃশ্যত এটিকে ‘নিষ্ক্রয়’ করে দিয়ে নিজেই প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হয়েছেন। আগামী ২৬ ও ২৭ মে অনুষ্ঠেয় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে শক্ত কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকায় তাকেই মিশরের পরবর্তী প্রেসিডেন্ট বলে মনে করছেন অনেকে।

 

জেনারেল সিসি এ সাক্ষাৎকারে দাবি করেছেন, গত বছর মুরসিকে ক্ষমতাচ্যুত করা এবং তার সমর্থিত ইখওয়ানের ওপর গণহত্যা অভিযান চালানোর সময় তার কোনো রাজনৈতিক উচ্চাভিলাষ ছিল না। কিন্তু এখন `জাতির স্বার্থে` তাকে এ `গুরুদায়িত্ব` কাঁ তুলে নিতে হচ্ছে। ইখওয়ান প্রায় অস্তিত্বহীন হয়ে পড়েছে বলে উল্লেখ করে সিসি বলেন, “আমি আপনাদের বলতে চাই আমি ইখওয়ানকে শেষ করে দেইনি বরং, আপনারা, মিশরের জনগণই এটিকে শেষ করে দিয়েছেন।” আপনি নির্বাচিত হলে কি ইখওয়ানের ‘অস্তিত্ব শেষ’ করে দেওয়া হবে- এমন প্রশ্নের জবাবে ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেন্ট মুরসির হাত ধরে সেনাপ্রধান হওয়া এই জেনারেল বলেন, “হ্যাঁ, তাই।”

অর্থ-কড়ি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত