ঢাকা, ১৮ নভেম্বর, ২০১৯
সর্বশেষ:
জরুরি প্রয়োজনে কল করুন- ৯৯৯ আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন ডিসেম্বরে হেল্পলাইন ১৬২৬৩ এ কল করলেই ডাক্তারের পরামর্শ

আসলেও কি তাই?

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৪:৩৯, ১০ ডিসেম্বর ২০১৮  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

নতুন ধারার এক যুদ্ধ শুরু হয়েছে গত ১লা ডিসেম্বর ২০১৮ তারিখ থেকে। এর সুচনা হয়েছে টেক জায়েন্ট Huawei র চীফ ফাইন্যানশিয়াল অফিসার (যিনি কিনা আবার প্রতিষ্ঠাতার মেয়ে) মিস সাবরিনা মেং এর কানাডাতে আটকের মাধ্যমে। তাও আবার আমেরিকার অনুরোধে। 

ইরান বা নর্থ কোরিয়ার সাথে ব্যবসায়িক লেনদেনের কারনেই নাকি এই গ্রেফতারী পরোয়ানা। আসলেই কি তাই? 

স্মার্টফোন বিক্রিতে আইফোন ডিংগিয়ে Huawei এখন ২য় অবস্থানে হলেও এর মুল ব্যবসা নেটওয়ার্কিং যন্ত্রাংশ বিক্রি। ব্যাটেলফিল্ড হল ভবিষ্যত প্রজন্মের 5G আর এই মুহুর্তে শুধুমাত্র Huawei প্রস্তুত সারা পৃথিবীর মার্কেট ধরতে কারন শুধু এদেরই আছে 5G ক্যাপেবল বেজ স্টেশন, ডাটা সেন্টার বা হ্যান্ডসেট। আর এখানেই আপত্তি আমেরিকা এবং ফাইভ আই (Five Eyes) গোত্রভুক্ত দেশ সমুহ কারন Huawei তে ব্যবহ্রত ক্রিপ্টোগ্রাফিক কোড আমেরিকান বা ফাইভ আই গোয়েন্দারা ডিকোড করতে পারে না।(হবেই বা না কেন? 

Huawei কর্মচারীর অর্ধেক জনবল নিয়োজিত রিসার্চ এন্ড বেসিক ডেভেলাপমেন্টে) ফলে অনেক দেশই তাদের সরকারী বা গোয়েন্দা যোগাযোগ নেটওয়ার্ক গড়ে তুলছে শুধুমাত্র Huawei ইনফ্রাস্ট্রাকচার দিয়ে। সম্প্রতি চীনে জারি হওয়া এক নোটিশে বলা হয়েছে সকল ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানকে সরকারী নীতিমালা কমপ্লাই করতে হবে। আগুনে ঘি-সংযোগ আর কি। সুতরাং যা করতে হবে তা এখনই। চীন কি বসে থাকবে ? দেখার অপেক্ষায় রইলাম।

নোটঃ Huawei র মালিক কে জানেন? সাবরিনা মেং বা তার বাবা প্রতিষ্ঠাতা রেন যেংফেই নন। এর মালিক হচ্ছে Huawei র ৮০,০০০ কর্মচারী। অবাক ব্যাপার।

(সোহেল রানার ফেসবুক পোস্ট থেকে)

মোবাইল-পিসি-টেক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত