ঢাকা, ১১ জুলাই, ২০২০
সর্বশেষ:
সেহরি ও ইফতারের সময় সূচি : ঢাকায় প্রথম রোজার সেহরির শেষ সময় রাত ৪টা ৫ মিনিটে আর ইফতার হবে সন্ধ্যা ৬টা ২৮ মিনিটে। আইইডিসিআর এর করোনা কন্ট্রোল রুম (০১৭০০৭০৫৭৩৭) অথবা হটলাইন নম্বরে (০১৯৩৭১১০০১১, ০১৯৩৭০০০০১১, ০১৯২৭৭১১৭৮৪, ০১৯২৭৭১১৭৮৫, ০১৯৪৪৩৩৩২২২, ০১৫৫০০৬৪৯০১–০৫) যোগাযোগ করা যাবে। এ ছাড়া করোনাসংক্রান্ত তথ্য জানতে বা সহযোগিতা পেতে স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ এবং ৩৩৩ নম্বরে ফোন করা যাবে। অনলাইনে করোনা নিয়ে যোগাযোগ করতে আইইডিসিআরের ই-মেইল [email protected] এবং ফেসবুক পেজে (Iedcr,COVID19 Control Room) যোগাযোগ করা যাবে। জরুরি প্রয়োজনে কল করুন- ৯৯৯

আলু নিয়ে কৃষকদের বিরুদ্ধে মামলা করে বিপাকে পেপসি

বিশ্ব সংবাদ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৩:৩৪, ২৯ এপ্রিল ২০১৯  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

কিশোর-তরুণ-বৃদ্ধদের মাঝে ব্যাপক জনপ্রিয় লেইজ চিপস তৈরির মূল উপাদান হচ্ছে এফসি৫ ভেরাইটি জাতের আলু। বিশ্বখ্যাত কোমল পানীয় পেপসির প্রস্তুতকারী কোম্পানির ভারতীয় ইউনিট গুজরাতের একদল কৃষকের বিরুদ্ধে ওই আলুকে কেন্দ্র করে মামলা করেছিল। বিবাদী কৃষকরা পেপসি কোম্পানির পেটেন্ট করা এফসি৫ নামের বিশেষ ওই আলুর চাষাবাদ করছিল এই অভিযোগে। পেপসি কোম্পানি মনে করে যে এতে তাদের অধিকার ক্ষুন্ন হয়েছে। সুতরাং ঠুঁকে দেয় মামলা।

ভারতে পেপসি কোলা ও লেইজ চিপসের প্রস্তুতকারী হচ্ছে পেপসিকো। তারা তাদের জনপ্রিয় এবং অভিজাত লেইজ চিপস তৈরিতে ওই আলু ব্যবহার করে থাকে। প্রসঙ্গত, কম জলীয় পদার্থ ধারক এফসি৫ প্রজাতির আলু চিপসের মতো স্ন্যাক্স তৈরির জন্য বিশেষ উপযোগী।

যাহোক, প্রত্যেক কৃষকের বিরুদ্ধে ১০ লাখ রুপি ক্ষতিপূরণ চেয়ে মামলা করে লেইজ চিপসের প্রস্তুতকারী পেপসিকো। কৃষকদের আইনজীবী আনন্দ ইয়াগনিক জানিয়েছেন গুজরাতের বাণিজ্য নগরী আহমেদাবাদের একটি আদালত তাদের আর্জি শুনতে রাজি হয়েছে। এজন্য আগামী ১২ জুন শুনানির দিন ধার্য করা হয়েছে। 

অপরদিকে, পেপসিকো ইন্ডিয়ার মুখপাত্র জানান যে তাদের রেজিস্ট্রি করা বিশেষ পণ্য নিয়ে অবৈধ কর্মকাণ্ড করা ওই কৃষকদের বিরুদ্ধে আইনি প্রতিকার চেয়েছেন তারা। তবে বিবাদী কৃষকরা জানান যে তারা দীর্ঘদিন ধরে আলু উৎপাদন করে আসছেন, এর আগে কখনো এ ধরনের ঝামেলায় পড়েননি। তারা একবছরের সংরক্ষিত আলুবীজ পরের বছর বপন করে থাকেন। 

কিন্তু পেসিকোর মত হচ্ছে, এটা তাদের অধিকার রক্ষার লড়াই এবং বিশাল কৃষক শ্রেণি যারা পেপসির অধীনে ওই বিশেষ আলু উৎপন্ন করে তাদেরও বৃহত্তর স্বার্থ জড়িত রয়েছে এতে।  
 
কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রে পেপসি হেডকোয়ার্টার এবং এশিয়া-প্যাসিফিক অঞ্চলের দুবাই অফিস বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগে পড়ে গেছে। তারা পেপসির ভারতীয় অফিসকে এ বিষয়ের সম্ভাব্য বিপদ সম্পর্কে সতর্ক করে দিয়েছে।  

এনবিটি প্রকাশিত খবরে জানা গেছে, পেপসিকোর ভারতীয় ইউনিট ভারতের পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজ্য গুজরাতের ৯ জন কৃষকের বিরুদ্ধে মামলা করেছিল যারা এফসি৫ আলু উৎপন্ন করে। এ নিয়ে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে সোশাল মিডিয়ার ভারতীয় সেক্টর। সেখানে রব ওঠে পেপসিকে ভারত থেকে খেদানোর।

ভোক্তাদের মাঝে লেইজ চিপস এবং পেপসির ব্রান্ডও ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ার মুখে পড়ে। আর তাই পেপসির মতো বিশাল কোম্পানি লেজ গুটিয়ে নেয়। তড়িঘরি বিষয়টি ফয়সালা করতে চাইছে তারা। পেপসি হেডকোয়ার্টার এ ঘটনায় বেচইন অবস্থায় রয়েছে বলে জানা গেছে। কারণ, ভারত থেকে পেপসিকে সরতে হলে ওই দেশ এবং তার আশপাশে  বাংলাদেশসহ বিশাল অঞ্চলের বাজার ক্ষতিগ্রস্থ হবে তাদের। পুরো বিষয়টি পরে বিশ্বজুড়ে পেপসির বাজার ও ইমেজকে প্রশ্নের মুখে ফেলে দেবে।     

এর সূত্র ধরে ভারতে থাকা পেপসি কোম্পানি তথা পেপসিকো’র সুর নরম হয়ে আঠে হঠাৎ করেই যেন। তারা বিবাদী কৃষকদের প্রস্তাব দিয়েছে আদালতের বাইরে বিষয়টির ফয়সালা করার জন্য।    

নিউজওয়ান২৪.কম/আরকে

অর্থ-কড়ি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত