ঢাকা, ১৩ আগস্ট, ২০২০
সর্বশেষ:
সেহরি ও ইফতারের সময় সূচি : ঢাকায় প্রথম রোজার সেহরির শেষ সময় রাত ৪টা ৫ মিনিটে আর ইফতার হবে সন্ধ্যা ৬টা ২৮ মিনিটে। আইইডিসিআর এর করোনা কন্ট্রোল রুম (০১৭০০৭০৫৭৩৭) অথবা হটলাইন নম্বরে (০১৯৩৭১১০০১১, ০১৯৩৭০০০০১১, ০১৯২৭৭১১৭৮৪, ০১৯২৭৭১১৭৮৫, ০১৯৪৪৩৩৩২২২, ০১৫৫০০৬৪৯০১–০৫) যোগাযোগ করা যাবে। এ ছাড়া করোনাসংক্রান্ত তথ্য জানতে বা সহযোগিতা পেতে স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ এবং ৩৩৩ নম্বরে ফোন করা যাবে। অনলাইনে করোনা নিয়ে যোগাযোগ করতে আইইডিসিআরের ই-মেইল [email protected] এবং ফেসবুক পেজে (Iedcr,COVID19 Control Room) যোগাযোগ করা যাবে। জরুরি প্রয়োজনে কল করুন- ৯৯৯

আন্তর্জাতিকমহলে বাড়ছে ওয়ালটনের চাহিদা

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৪:৩৯, ২৪ ডিসেম্বর ২০১৮  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

আন্তর্জাতিকমহলে দ্রুত জায়গা করে নিচ্ছে ওয়ালটন। বিদেশি ক্রেতাদের হাতে সাশ্রয়ী মূল্যে বিশ্বমানের বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী গ্লোবাল স্ট্যান্ডার্ড পণ্য তুলে দিচ্ছে ওয়ালটন। ফলে রফতানি বাজারে দ্রুত বাড়ছে বাংলাদেশি ওয়ালটন পণ্যের মার্কেট শেয়ার। এরই মধ্যে লেবাননে গেছে বিপুল পরিমাণ ওয়ালটন ফ্রিজ।

ওয়ালটনের আন্তর্জাতিক বিজনেস ইউনিটের (আইবিইউ) প্রতিনিধিরা জানিয়েছেন, ডিজাইন, মান ও অন্যান্য শর্তানুযায়ী ফ্রিজ তৈরি করে ওইএম (অরিজিনাল ইক্যুইপমেন্ট ম্যানফ্যাকচারার) পদ্ধতির আওতায় লেবাননে বিপুল পরিমাণ ফ্রিজ রফতানি করেছে ওয়ালটন। এর মধ্যে রয়েছে ব্যাপক বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী ইন্টেলিজেন্ট ইনভার্টার প্রযুক্তির নন-ফ্রস্ট রেফ্রিজারেটর। দেশটিতে শিগগির ফ্রিজ রফতানির আরেকটি বড় অর্ডার মিলবে বলে আশা করছেন তারা।

ওয়ালটনের আইবিইউ বিভাগের প্রধান এডওয়ার্ড কিম বলেন, ওয়ালটনের লক্ষ্য ১০০ কোটি মার্কিন ডলারের পণ্য রফতানির মধ্য দিয়ে বিশ্ববাজারে শক্তিশালী অবস্থান তৈরি করা। তাই আন্তর্জাতিক বাজারে ওইএম-এর মাধ্যমে বিজনেস ভলিউম বাড়ানোর ওপর গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে মধ্যপ্রাচ্যের লেবানন ও ইয়েমেনে ইতোমধ্যে বিশাল পরিমান ফ্রিজ রফতানি করা হয়েছে।

ওয়ালটন পণ্যের অত্যাধুনিক প্রযুক্তি, গ্লোবাল স্ট্যান্ডার্ড, আকর্ষণীয় ডিজাইন, প্রতিযোগী মূল্য সক্ষমতা বৈশিষ্ট্যগুলোই নতুন রফতানি বাজার সৃষ্টি ও বাজার সম্প্রসারণে বিশেষ নিয়ামক হিসেবে কাজ করছে বলে জানান এডওয়ার্ড কিম।

ওয়ালটনের উপ-নির্বাহী পরিচালক উদয় হাকিম জানান, ওয়ালটনের মূল ফোকাস এখন বিশ্ববাজার। মধ্যপ্রাচ্য ছাড়াও এশিয়া আর আফ্রিকা অঞ্চলের বিভিন্ন দেশে ওয়ালটন পণ্য রফতানি হচ্ছে। এবার ইউরোপ, আমেরিকা ও অস্ট্রেলিয়ার মতো উন্নত বিশ্বের বাজারে পণ্য রফতানির বৃহৎ পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে ওয়ালটন। সেজন্য অত্যাধুনিক প্রযুক্তির গ্লোবাল মডেলের পণ্য উৎপাদন হচ্ছে এই প্রতিষ্ঠানের কারখানায়।

ইউরোপ ও আমেরিকা অঞ্চলে নিযুক্ত ওয়ালটন আইবিইউ শাখার প্রতিনিধি আব্দুর রউফ জানিয়েছেন— জার্মানি, যুক্তরাজ্য, চীন, সংযুক্ত আরব আমিরাত, তাইওয়ান, থাইল্যান্ডসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে গ্লোবাল আরএনডি সেন্টারের পাশাপাশি শাখা অফিস স্থাপন করছে ওয়ালটন। আন্তর্জাতিক বিজনেস ইউনিটকে আরো শক্তিশালী করতে বিশ্ব ইলেক্ট্রনিক্স বাজারের বিপণন বিশেষজ্ঞদের নিয়োগ দিচ্ছে এই প্রতিষ্ঠান।

এছাড়া বিভিন্ন আন্তর্জাতিক বিজনেস কনফারেন্স ও পণ্য প্রদর্শনীতে নিয়মিত অংশ নিচ্ছে ওয়ালটন। চীনের ক্যান্টন ফেয়ার, নাইজেরিয়ার লাগোস ফেয়ার, সংযুক্ত আরব আমিরাতের ইলেক্ট্রনিক্স ফেয়ারসহ অতি সম্প্রতি জার্মানির চিলভেন্টা প্রদর্শনীতে অংশ নিয়েছে ওয়ালটন।

নিউজওয়ান২৪/জেডএস

অর্থ-কড়ি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত