ঢাকা, ২৫ মে, ২০২০
সর্বশেষ:
সেহরি ও ইফতারের সময় সূচি : ঢাকায় প্রথম রোজার সেহরির শেষ সময় রাত ৪টা ৫ মিনিটে আর ইফতার হবে সন্ধ্যা ৬টা ২৮ মিনিটে। আইইডিসিআর এর করোনা কন্ট্রোল রুম (০১৭০০৭০৫৭৩৭) অথবা হটলাইন নম্বরে (০১৯৩৭১১০০১১, ০১৯৩৭০০০০১১, ০১৯২৭৭১১৭৮৪, ০১৯২৭৭১১৭৮৫, ০১৯৪৪৩৩৩২২২, ০১৫৫০০৬৪৯০১–০৫) যোগাযোগ করা যাবে। এ ছাড়া করোনাসংক্রান্ত তথ্য জানতে বা সহযোগিতা পেতে স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ এবং ৩৩৩ নম্বরে ফোন করা যাবে। অনলাইনে করোনা নিয়ে যোগাযোগ করতে আইইডিসিআরের ই-মেইল [email protected] এবং ফেসবুক পেজে (Iedcr,COVID19 Control Room) যোগাযোগ করা যাবে। জরুরি প্রয়োজনে কল করুন- ৯৯৯

শাবান : রোজার প্রস্তুতির মাস

ধর্ম ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২:২৩, ২ এপ্রিল ২০২০  

ইয়া রাব্বুল আলামিন আল্লাহ তায়ালা! আমাদেরকে রমজান পর্যন্ত হায়াত দান করুন এবং মাসটির ফজিলত ও বরকত হাসিল করার তাওফিক দান করেন। আমিন।

ইয়া রাব্বুল আলামিন আল্লাহ তায়ালা! আমাদেরকে রমজান পর্যন্ত হায়াত দান করুন এবং মাসটির ফজিলত ও বরকত হাসিল করার তাওফিক দান করেন। আমিন।


বর্তমানে আমরা হিজরি সনের অষ্টম মাস শাবান অতিক্রম করছি। আর মুসলমানদের জন্য বছরের শ্রেষ্ঠতম মাস হচ্ছে রমজান! 

রমজানে মুসলমানদের টানা দীর্ঘ একমাস রোজা পালন করতে হয়। এর জন্য প্রয়োজন মানসিক, শারীরিক ও আর্থিক প্রস্তুতি।

প্রিয় নবী রাসূলুল্লাহ (সা.) সাধারণত প্রতি মাসের ১৩, ১৪, ১৫ তারিখ নফল রোজা পালন করতেন। তাছাড়া তিনি (সা.) সোমবার ও বৃহস্পতিবারও নফল রোজা থাকতেন। তবে রাসূল (সা.) রমজানের প্রস্তুতি স্বরুপ অন্য মাসের তুলনায় শাবানে বেশি বেশি নফল রোজা রাখতেন। যেমন হাদিসে বর্ণীত হয়েছে-

عَنْ عَائِشَةَ قَالَتْ كَانَ رَسُولُ اللهِ صلى الله عليه وسلم يَصُومُ حَتَّى نَقُولَ لاَ يُفْطِرُ وَيُفْطِرُ حَتَّى نَقُولَ لاَ يَصُومُ فَمَا رَأَيْتُ رَسُولَ اللهِ صلى الله عليه وسلم اسْتَكْمَلَ صِيَامَ شَهْرٍ إِلاَّ رَمَضَانَ وَمَا رَأَيْتُهُ أَكْثَرَ صِيَامًا مِنْهُ فِي شَعْبَانَ

অর্থ : ‘আয়িশাহ্ (রা.) হতে বর্ণিত। তিনি বলেন, আল্লাহর রাসূল (সা.) একাধারে (এত অধিক) সওম পালন করতেন যে, আমরা বলাবলি করতাম, তিনি আর সওম পরিত্যাগ করবেন না। (আবার কখনো এত বেশি) সওম পালন না করা অবস্থায় একাধারে কাটাতেন যে, আমরা বলাবলি করতাম, তিনি (সা.) আর (নফল) সওম পালন করবেন না। আমি আল্লাহর রাসূল (সা.)-কে রমজান ব্যতীত কোনো পুরো মাসের সওম পালন করতে দেখিনি এবং শাবান মাসের চেয়ে কোনো মাসে অধিক (নফল) সওম পালন করতে দেখিনি। (বুখারী হা/১৯৬৯, ১৯৭০,৬৪৬৫; মুসলীম হা/১১৫৬; আহমাদ হা/২৫১৫৫; আবু দাউদ হা/২৪৩৪; তিরমিযী হা/৭৩৬)।

সুতরাং আসুন শাবান মাসে আমরাও রাসূলুল্লাহ (সা.) এর সুন্নাত অনুযায়ী বেশি বেশি করে নফল রোজা রাখার চেষ্টা কর।

 ইয় রাব্বুল আলামিন আল্লাহ তায়ালা! আমাদেরকে রমজান পর্যন্ত হায়াত দান করুন এবং মাসটির ফজিলত ও বরকত হাসিল করার তাওফিক দান করেন। আমিন।