ঢাকা, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০
সর্বশেষ:
আইইডিসিআর এর করোনা কন্ট্রোল রুম (০১৭০০৭০৫৭৩৭) অথবা হটলাইন নম্বরে (০১৯৩৭১১০০১১, ০১৯৩৭০০০০১১, ০১৯২৭৭১১৭৮৪, ০১৯২৭৭১১৭৮৫, ০১৯৪৪৩৩৩২২২, ০১৫৫০০৬৪৯০১–০৫) যোগাযোগ করা যাবে। এ ছাড়া করোনাসংক্রান্ত তথ্য জানতে বা সহযোগিতা পেতে স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ এবং ৩৩৩ নম্বরে ফোন করা যাবে। অনলাইনে করোনা নিয়ে যোগাযোগ করতে আইইডিসিআরের ই-মেইল [email protected] এবং ফেসবুক পেজে (Iedcr,COVID19 Control Room) যোগাযোগ করা যাবে। জরুরি প্রয়োজনে কল করুন- ৯৯৯

যুবলীগের জাতীয় কংগ্রেস: পরশ চেয়ারম্যান, নিখিল সম্পাদক

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ০৯:৪৫, ২৪ নভেম্বর ২০১৯  

পরশ চেয়ারম্যান, নিখিল সম্পাদক- ফাইল ফটো

পরশ চেয়ারম্যান, নিখিল সম্পাদক- ফাইল ফটো

নানা অপকর্মে বিতর্কিত যুবলীগের ভাবমূর্তি ফেরানোর মূল দায়িত্ব সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শেখ ফজলুল হক মনির জ্যেষ্ঠ পুত্র শেখ ফজলে শামস পরশের হাতে তুলে দেয়া হলো। 

গতকাল শনিবার (২৩ নভেম্বর) যুবলীগের সপ্তম জাতীয় কংগ্রেসের মধ্য দিয়ে পরশকে চেয়ারম্যান নির্বাচিত করা হয়। আর চমক দেখিয়ে সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পেয়েছেন ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগের সভাপতি মঈনুল হোসেন খান নিখিল। 

ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে যুবলীগের কংগ্রেসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ও ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে কাউন্সিল অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়।

কাউন্সিল অধিবেশন শেষে যুবলীগের নতুন নেতৃত্ব ঘোষণা করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। এর আগে কাউন্সিল অধিবেশনে চেয়ারম্যান পদে শেখ ফজলে শামস পরশের নাম প্রস্তাব করেন সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক চয়ন ইসলাম। প্রস্তাবটি সমর্থন করেন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদ। এ পদে আর কোনো প্রার্থী না থাকায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন পরশ।

৫১ বছর বয়সী পরশ বর্তমানে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের শিক্ষক। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজিতে স্নাতকোত্তর শেষে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের কলোরাডো স্টেট ইউনিভার্সিটি থেকে একই বিষয়ে আবারো স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। ১৯৭৫ সালের ১৫ই আগস্ট শিশুকালে মা-বাবাকে হারানো পরশ ও তার ছোট ভাই তাপস চাচা-চাচির সংসারে বড় হন।

কাউন্সিল অধিবেশনে সাধারণ সম্পাদক পদে সাতজনের নাম প্রস্তাব আসে। তারা হলেন মহিউদ্দিন আহমেদ মহি, অ্যাডভোকেট বেলাল হোসেন, সুব্রত পাল, মনজুর আলম শাহিন, ইকবাল মাহমুদ বাবলু, বদিউল আলম ও মঈনুল হোসেন খান নিখিল। পদপ্রত্যাশীদের মধ্যে সমঝোতার জন্য ২০ মিনিট সময় দেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা। সমঝোতা না হওয়ায় আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার সঙ্গে পরামর্শ করে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নিখিলের নাম ঘোষণা করেন ওবায়দুল কাদের।

যুবলীগের কেন্দ্রীয় রাজনীতি না করলেও নিখিল এর আগে ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন। বর্তমানে তিনি ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগের সভাপতি। সাধারণ সম্পাদক পদে যুবলীগের বর্তমান নেতৃত্বের মধ্যে বেশ কয়েকজনকে নিয়ে নেতাকর্মীদের মধ্যে বিশেষ আলোচনা থাকলেও নিখিল তেমন আলোচনায় ছিলেন না। ফলে তার সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হওয়াটাকে চমক হিসেবে দেখছেন সংগঠনটির নেতাকর্মীরা।

নিউজওয়ান২৪.কম/এমজেড

আরও পড়ুন