ঢাকা, ০১ অক্টোবর, ২০২০
সর্বশেষ:
আইইডিসিআর এর করোনা কন্ট্রোল রুম (০১৭০০৭০৫৭৩৭) অথবা হটলাইন নম্বরে (০১৯৩৭১১০০১১, ০১৯৩৭০০০০১১, ০১৯২৭৭১১৭৮৪, ০১৯২৭৭১১৭৮৫, ০১৯৪৪৩৩৩২২২, ০১৫৫০০৬৪৯০১–০৫) যোগাযোগ করা যাবে। এ ছাড়া করোনাসংক্রান্ত তথ্য জানতে বা সহযোগিতা পেতে স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ এবং ৩৩৩ নম্বরে ফোন করা যাবে। অনলাইনে করোনা নিয়ে যোগাযোগ করতে আইইডিসিআরের ই-মেইল [email protected] এবং ফেসবুক পেজে (Iedcr,COVID19 Control Room) যোগাযোগ করা যাবে। জরুরি প্রয়োজনে কল করুন- ৯৯৯

বাংলাদেশ-শ্রীলংকা সিরিজ

বড় লক্ষ্য টপকাতে হবে টাইগারদের

স্পোর্টস ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৯:৪৬, ২৬ জুলাই ২০১৯  

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

বাংলাদেশ-শ্রীলংকা সিরিজের শুরুতে ব্যাট করে বড় স্কোর দাঁড় করিয়েছে লংকানরা। ম্যাচ জিততে বড় লক্ষ্য টপকাতে হবে টাইগার ব্যাটসম্যানদের। তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে আজ কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হয় স্বাগতিক শ্রীলংকা-বাংলাদেশ। 

শুরুতে ব্যাট করে বড় স্কোর দাঁড় করিয়েছে লংকানরা। ম্যাচ জিততে বড় পরীক্ষা দিতে হবে টাইগার ব্যাটসম্যানদের।
 
নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে শ্রীলংকার সংগ্রহ ৮ উইকেটে ৩১৪ রান। 

এর আগে টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন শ্রীলংকা অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নে। তামিম ইকবালের অধিনায়কত্বে প্রথম ম্যাচ খেলতে নামে টাইগাররা। অপরদিকে লংকান গ্রেট লাসিথ মালিঙ্গার বিদায়ী ম্যাচ হিসেবেও বিশেষত্ব পাচ্ছে দু’দলের এই লড়াই। 

দলের হয়ে ইনিংস উদ্বোধন করতে নামেন করুনারত্নে ও আভিস্কা ফার্নান্দো। শুরু থেকে দেখে খেলার চেষ্টা করেন ২ ব্যাটসম্যান। তবে টাইগারদের বেশিক্ষণ অপেক্ষা করাননি শেষ মুহূর্তে স্কোয়াডে আসা পেসার শফিউল ইসলাম। ব্যক্তিগত দ্বিতীয় ও ইনিংসের তৃতীয় ওভারেই সৌম্যের ক্যাচ বানিয়ে ফেরান আভিস্কাকে। সাত রান করেন এই লংকান ওপেনার।এরপর কুশল পেরেরা ও করুনারত্নে মিলে শুরু করেন পালটা আক্রমণ। দুজনের সম্মিলিত আক্রমণে ব্যাকফুটে চলে যায় বাংলাদেশ। মাঝে শফিউলের বলে কুশল পেরেরাকে আউট দেন আম্পায়ার। তবে রিভিউয়ের কল্যাণে বেঁচে যান তিনি। 

মাত্র ১২ ওভারেই ৯৭ রানের পার্টনারশিপ করেন করুনারত্নে ও পেরেরা। ভালো খেলতে থাকা করুনারত্নকে ফিরিয়ে ব্রেক থ্রু দেন মিরাজ। ৩৬ রান করা লংকান ক্যাপ্টেনকে মুস্তাফিজুরের তালুবন্দী করে প্যাভিলিয়নে ফেরত পাঠান তিনি। এরপর দুই কুশল মিলে ছড়ি ঘোরাতে থাকেন টাইগার বোলারদের ওপর। শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক খেলতে থাকা কুশল পেরেরা তুলে নেন ব্যক্তিগত পঞ্চম শতক। তাকে আউট করে শতরানের জুটি ভাঙ্গেন পার্ট টাইমার সৌম্য। সঙ্গীর বিদায়ের পর বেশিক্ষণ টেকেননি কুশল মেন্ডিসও। রুবেলের বলে ৪৩ রানের ইনিংস খেলে আউট হন তিনি। 

দ্রুত ২ উইকেট পতনের পর দলের হাল ধরেন এঞ্জেলো ম্যাথিউস ও লাহিরু থিরিমান্নে। তাদের ৬০ রানের জুটিতে আবারও ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ ঝুকে যায় শ্রীলংকার দিকে। মুস্তাফিজের বলে ২৫ রানে আউট হন থিরিমান্নে। থিসারা পেরেরাকে থিতু হতে দেননি শফিউল। মাত্র ২ রানেই সৌম্যের ক্যাচ হয়ে সাজঘরে ফেরেন তিনি। 

ম্যাথিউস ও ধনঞ্জয় ডি সিলভা মিলে দলীয় ৩০০ রান পার করেন। দা ফিজের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হওয়ার আগে ৪৮ রান করেন ম্যাথিউস। তার জায়গায় ব্যাট হাতে নামেন শেষ ম্যাচ খেলতে নামা লাসিথ মালিঙ্গা। ইনিংস শেষে ৬ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি। 

বাংলাদেশের হয়ে ৩ উইকেট নেন শফিউল ইসলাম, ২ উইকেট শিকার করেন মুস্তাফিজুর রহমান। 

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

শ্রীলংকা ৩১৪/৮ (৫০ ওভার)
কুশল পেরেরা ১১১, ম্যাথিউস ৪৮
শফিউল  ৬২/৩, মুস্তাফিজ ৭৫/২

নিউজওযান২৪.কম/আ.রাফি