ঢাকা, ১২ ডিসেম্বর, ২০১৯
সর্বশেষ:
জরুরি প্রয়োজনে কল করুন- ৯৯৯

নিউইয়র্ক আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক গ্রেপ্তার ও জামিনে মুক্ত

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ০৯:২৯, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

এমদাদকে গ্রেপ্তার করে নিয়ে যাচ্ছে নিউ ইয়র্ক পুলিশ            ছবি: সংগৃহীত

এমদাদকে গ্রেপ্তার করে নিয়ে যাচ্ছে নিউ ইয়র্ক পুলিশ ছবি: সংগৃহীত

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইমদাদ চৌধুরী এবং তার ভাই আবু সাঈদ চৌধুরীকে গতকাল শনিবার গ্রেপ্তার করে নিউইয়র্ক পুলিশ। তবে কোর্টে হাজিরার শর্তে তাকে পরে জামিন দেওয়া হয়।

শনিবার স্থানীয় সময় দিনগত রাত আড়াইটার দিকে ইমদাদ চৌধুরী এবং তার ভাই সাঈদকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে জানায় এনওয়াইপিডি (নিউইয়র্ক পুলিশ ডিপার্টমেন্ট) মুখপাত্র সোফিয়া ম্যাসন। তবে গ্রেপ্তারের পর নিকটস্থ কোর্টে নেয়া হলে পরবর্তীতে আদালতে হাজিরার শর্তে জামিন লাভ করেন ইমদাদ। 

জানা ড়েছে, গত ১৫ সেপ্টেম্বর রবিবার রাতে নিউ ইয়র্কের একটি রেস্টুরেন্টে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ নেতা ওয়ালি হোসেনকে (৪৪) বেধড়ক মারধর করে ইমদাদ গ্রুপ। মারপিটের এ ঘটনায় দায়ের করা মামলা সূত্রে আরও ৩ জনকে খুঁজছে এনওয়াইপিডি। মারধরের পর ওয়ালি হোসেনকে এলমহার্স্ট হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসকরা জানান মাথায় প্রচণ্ড আঘাত পেয়েছেন তিনি। সেখানে ২দিন চিকিৎসার পর তাকে রিলিজ দেয়া হয়। 

ঘটনার বিষয়ে ওয়ালি বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সম্মেলনের দাবি উঠার পরই এক শ্রেণির লোক পদ-পদবির টোপ দিয়ে নগদ অর্থ আদায় করছে। এ ব্যাপারে আমি আমার ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছিলাম। সেটিই আমার অপরাধ। একটি শোক সভা শেষে তবারক গ্রহণের সময় এমদাদ চৌধুরীসহ কয়েকজন আমার ওপর আচমকা হামলা করে।’

তবে এমদাদ চৌধুরী গ্রেপ্তারের সংবাদে অনেকে স্বস্তি প্রকাশ করেছেন। এর বিপরীতে কেউ কেউ মিশ্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। কারণ, এমন সময়ে এমদাদকে গ্রেপ্তার করা হলো যার মাত্র ১৪ ঘণ্টা পর দলীয় সভাপতি মাননীয় প্রধানমন্ত্রিী শেখ হাসিনা নিউইয়র্কে অবতরণ করেন। 

উল্লেখ্য, গতবছরও নিউ ইয়র্কে দলীয় কোন্দল-সংঘাতের জের ধরে যুবলীগের দুই নেতাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিউ ইয়র্ক সফর শুরুর তিন দিন আগে। পরবর্তীতে তারা বেকসুর খালাসও পান। 

এদিকে, জানা গেছে, মহানগর আওয়ামী লীগের সেক্রেটারি এমদাদ চৌধুরী বছরের অধিকাংশ সময়ই ঢাকায় অবস্থান করেন। গণভবন এবং সচিবালয়ের আশপাশে তাকে দেখা যায়। এ নিয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারাও অনেক সময় বিরক্তি প্রকাশ করেন। এমনকি নিউইয়র্কেও রয়েছে নানা প্রশ্ন। 

নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জাকারিয়া চৌধুরী ঘটনা প্রসঙ্গে বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিউইয়র্ক সফর শেষে এমদাদ চৌধুরীর বিরুদ্ধে প্রচলিত রীতি অনুযায়ী সাংগঠনিক পদক্ষেপ নেয়া হবে।’

তিনি আরও বলেন, আমরা এখন সবাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জাতিসংঘ সফর নিয়ে ব্যস্ত। তবে এমদাদ যে কাণ্ড করেছেন তা কোনোভাবেই বরদাশত করার মতো নয়।
এ বিষয়ে এমদাদ চৌধুরীর বক্তব্য জানা যায়নি।
নিউজওয়ান২৪.কম/এনআই