ঢাকা, ২০ নভেম্বর, ২০১৯
সর্বশেষ:
জরুরি প্রয়োজনে কল করুন- ৯৯৯ আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন ডিসেম্বরে হেল্পলাইন ১৬২৬৩ এ কল করলেই ডাক্তারের পরামর্শ

এরশাদের শূন্য আসনের তফসিল ১ সেপ্টেম্বর

প্রকাশিত: ১২:৩৬, ২৮ আগস্ট ২০১৯  

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের মৃত্যুতে শূন্য হওয়া রংপুর-৩ আসনে উপ-নির্বাচনের তফসিল ১ সেপ্টেম্বর ঘোষণা হবে। এ আসনে ইভিএমের মাধ্যমে ভোট গ্রহণ করা হবে।

মঙ্গলবার বিকেলে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন কমিশনে কমিশনারদের বৈঠক শেষে কমিশন সচিব মোহাম্মদ আলমগীর সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান।

এ দিকে উপ-নির্বাচনের তফসিল ঘোষিত না হলেও ২৪ আগস্ট থেকেই দলীয় মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু করে জাতীয় পাটি। ২৭ আগস্ট পর্যন্ত মাত্র একটি ফরম বিক্রি হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে এস এম ইয়াসিরের পক্ষে এ মনোনয়ন ফরম উত্তোলন করেন দলের যুগ্ম মহাসচিব হাসিবুল ইসলাম জয়।

জানা গেছে, পার্টির দলীয় ফরমের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১৫ হাজার টাকা। কতদিন পর্যন্ত এ ফরম বিতরণ করা হবে তা চূড়ান্ত হয়নি।

নির্বাচন উপলক্ষে জাপা ৮ সদস্য বিশিষ্ট পার্লামেন্টারি বোর্ডও গঠন করেছে। তবে সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান রওশন এরশাদসহ তার অনুসারী সিনিয়র নেতাদের ঠাঁই হয়নি পার্লামেন্টারি বোর্ডে। এরশাদ জীবিত থাকা অবস্থায় যারা বোর্ড সদস্য ছিলেন তাদের অনেকেরও জায়গা হয়নি এ বোর্ডে।

আর এ পার্লামেন্টারি বোর্ড প্রার্থী চূড়ান্ত করবে বলে জানিয়েছেন জাপা মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙ্গা।

জাপার দুর্গখ্যাত এ আসনে হাফ ডজন প্রার্থী রয়েছেন জাতীয় পার্টির মনোনয়ন প্রত্যাশী। এরমধ্যে মনোনয়ন দৌড়ে সামিল হয়েছেন এরশাদ পরিবারের চার সদস্য। এদিকে একজন মনোনয়ন না পেলে স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দিয়ে মাঠে নেমেছেন। পরিবার থেকে মনোনয়ন দৌড়ে থাকা প্রার্থীরা হলেন- এরশাদ পুত্র রাহগীর আল মাহি সাদ এরশাদ, ভাতিজা (ছোট ভাইয়ের ছেলে) সাবেক এমপি আসিফ শাহরিয়ার, ভাতিজা (মামাতো ভাইয়ের ছেলে) জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য অবসরপ্রাপ্ত মেজর খালেদ আখতার, ভাগনি (মেরিনা রহমানের মেয়ে) মেহেজেবুন্নেছা রহমান টুম্পা।

পরিবারের বাইরে মনোনয়ন প্রত্যাশীরা হলেন- প্রেসিডিয়াম সদস্য শিল্পপতি এস এম ফখর-উজ-জামান ও রংপুর মহানগর জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক এস এম ইয়াসির, রংপুর জেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক।

রংপুর-৩ আসনে জাতীয় পার্টির মনোনয়ন পেলেই বিজয়ী হবেন এমনটা ধরে নিয়ে তদবির চালিয়ে যাচ্ছেন প্রার্থীরা। অনেকেই পার্টির চেয়ারম্যান, মহাসচিবসহ সিনিয়র নেতাদের কাছে ধর্না দিচ্ছেন।

মনোনয়ন দৌড়ে সবচেয়ে প্রভাবশালী অবস্থানে রয়েছেন এরশাদ পুত্র সাদ। তার জন্য লবিং করছেন তার মা সংসদের বিরোধী দলীয় উপনেতা রওশন এরশাদ।

এদিকে রংপুরের এ আসনে মনোনয়ন প্রদানের বিষয়টি পার্টির নতুন চেয়ারম্যান জি এম কাদেরের জন্য অগ্নিপরীক্ষা মনে করছেন নেতাকর্মীরা। এখানে একদিকে যেমন রওশন এরশাদ ছেলের জন্য মরিয়া, অন্যদিকে স্থানীয় জাপার বড় একটি অংশ রয়েছে তার বিপক্ষে। আবার ভাতিজা আসিফ শাহরিয়ারের বিদ্রোহী প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা বেশ জটিল পরিস্থিতির সৃষ্টি করেছে।

নিউজওয়ান২৪.কম/এমজেড