ঢাকা, ১৮ নভেম্বর, ২০১৯
সর্বশেষ:
জরুরি প্রয়োজনে কল করুন- ৯৯৯ আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন ডিসেম্বরে হেল্পলাইন ১৬২৬৩ এ কল করলেই ডাক্তারের পরামর্শ

মুফতির ফতোয়া

‘অনুমতি ছাড়া স্বামী-স্ত্রীর ফোন চেক করা হারাম’

সাক্ষাৎকার ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৪:২৩, ২৪ মে ২০১৬   আপডেট: ২২:৪৬, ২ জুন ২০১৬

গ্রান্ড মুফতি ড. আলী আহমেদ মাশায়েল               -ফাইল ফটো

গ্রান্ড মুফতি ড. আলী আহমেদ মাশায়েল -ফাইল ফটো

অনুমতি ছাড়া স্ত্রীর ফোন চেক করা হারাম বলে ফতোয়া দিয়েছেন আরব আমিরাতের দুবাই রাজ্যের গ্রান্ড মুফতি।

তিনি বলেছেন, এটা শুধু অনৈতিকই নয়, যে পারস্পরিক বিশ্বাসের ভিত্তির ওপর বিবাহের মতো পবিত্র সম্পর্ক স্থাপিত- এই অসৌজন্যমূলক আচরণ সেই মৌলনীতিরও পরিপন্থি।

এমিরেট্‌স২৪৭ পত্রিকাকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে দুবাইর ইসলামিক অ্যাফেয়ার্স অ্যান্ড চ্যারিটেবল অ্যাক্টিভিটিজ ডিপার্টমেন্টের (আইএসিএডি) প্রধান গ্রান্ড মুফতি ড. আলী আহমেদ মাশায়েল এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, যে কোনো সম্পর্কে সম্পর্কিত দুজন ব্যক্তির পরষ্পরের বিরুদ্ধে গোয়েন্দাগিরি করা ইসলাম নিষিদ্ধ করেছে- হোক সেটা দুজন বন্ধু, ভাই-ভাই বা ভাই-বোন বা স্বামী-স্ত্রীর মাঝে।

তিনি বলেন, মানবসৃষ্ট বিধিবিধান প্রচলনের আগে থেকেই ইসলাম এ ধরনের অভব্য আচরণ বাতিল করেছে।

তিনি বলেন, ধর্মীয় বিধিবিধান মানবসৃষ্ট আইন-কানুনের চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। মুসলমানদের উচিৎ পরষ্পরের ওপর সন্দেহ ও গোয়েন্দাগিরি বর্জন করা। কারো মোবাইল ফোনে গোয়েন্দাগিরি করা একই ধরনের কাজ।

তিনি আরও বলেন, অনুমতি ছাড়া অন্যের মোবাইল ফোনে খোঁজ-তল্লাশি চালানো বেআইনি কাজ যার পরিণতি পরষ্পর বিশ্বাসহানি ও সন্দেহবৃদ্ধি এবং অবিশ্বস্ততা। এসব আচরণের একমাত্র গন্তব্য হচ্ছে একটি অশান্তিময় জীবন।

তার পরামর্ম হচ্ছে, যদি সন্দেহের সৃষ্টি হয় তাহলে সুন্দর মতো প্রিয়জনকে সতর্ক করাটাই হচ্ছে সঠিক পন্থা এবং তাদেরকে সতর্ক করে দিতে হবে যাতে তারা কোনো ভুল বা পাপ করার আগেই তা থেকে সরে আসতে পারে।

প্রসঙ্গত, সংযুক্ত আরব আমিরাতের আইনে অনুমতি ছাড়া অন্যের ফোন বা এ ধরনের অন্য কোনো গ্যাজেটে (যন্ত্রে) নজরদারি করা নিষিদ্ধ। এ ধরনের অপরাধের ক্ষেত্রে জেল এবং অর্থদণ্ড দুটোরই বিধান রয়েছে। দেশটির সাইবার ক্রাইম আইনের ১৪ ধারামতে বিনা অনুমতিতে কারও ইলেক্ট্রনিক কোনো গ্যাজেট-সাইটের গোপন নম্বর, পাসওয়ার্ড বা অন্য কোনো নম্বর চুরির শাস্তি জেল বা অর্থদণ্ড বা দুটোই হতে পারে। অর্থদণ্ডের পরিমাণ কমপক্ষে দুই লাখ আর ঊর্ধ্বে পাঁচ লাখ দিরহাম।

স্বামী স্ত্রীর সেল ফোনে পরষ্পরের নজরদারি কিংবা বিশ্বাসভঙ্গের অভিযোগে সাম্প্রতিক সময়ে বিশ্বের অনেক দেশেই স্বামীর হাতে স্ত্রী, স্ত্রীর হাতে স্বামী, প্রেমিকের হাতে প্রেমিকা আর প্রেমিকার হাতে প্রেমিকের নির্মম হত্যাকাণ্ডের বেশকিছু ঘটনা ঘটে গেছে।

নিউজওয়ান২৪.কম/একে

এসএমএস গন্ধম: স্ত্রীকে প্রশ্নের আগে ছুরি-চাকু সরিয়ে ফেলুন!