ঢাকা, ১৬ নভেম্বর, ২০১৮
NewsOne24
সর্বশেষ:
রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে সিলিন্ডার বিস্ফোরণে একজনের মৃত্যু, দগ্ধ ৩ শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি রুটে নৌযান চলাচল বন্ধ

শয়তান ধ্বংসের কায়দা!

জোক্স ডেস্ক

প্রকাশিত: ২২:১৩, ২৮ অক্টোবর ২০১৬   আপডেট: ২১:১২, ৩১ অক্টোবর ২০১৬

শয়তান ধ্বংসের কায়দা!

ছোটবেলায় আমি বা হাতে খাবার খেতাম। তখন মা বলতো, বাম হাতে খেলে খাবার সব শয়তানের পেটে যায়।

একপর্যায়ে বাম হাতে খাওয়া ত্যাগ করি।

এখন আমি বড় হয়েছি। চতুর্দিকের লোকজনের নানান শয়তানিতে ত্যক্ত-বিরক্ত-হতাশ-পেরেশান। ধূমপান করি মাঝে মাঝে। তবে একটা বুদ্ধি বের করেছি শয়তানদের বিনাশে। সিগারেট খাওয়ার সময়ে বাম হাতে খাই। এতে করে যাতে শয়তানের ফুসফুসটা নষ্ট হয়ে তাড়াতাড়ি সে মারা যায়।

নেগেটিভ চিন্তা!

মসজিদের সামনে এক ভিখারি নিয়মিত ভিক্ষায় বসতো। হঠাৎ একদিন লটারি জিতে সে কোটিপতি। বাড়িঘর সব বানালো- কিন্তু দোকান বা ব্যবসাপাতি কিছু করলো না। তবে এলাকায় একটা মসজিদও বানালো সে।

আত্মীয়-বন্ধুরা বললো, আল্লাহকে খুশি করার জন্য মসজিদ বানিয়েছো, ভাল। ইহকাল-পরকালে ফায়দা পাবে। কিন্তু আয় রোজগারের ব্যবস্থাও তো করতে হবে একটা!

আমি তো সেই পথই বের করেছি। এখন আয় আমার অনেক বেশি হবে।

নাউজুবিল্লাহ! লোক দেখানো ধার্মিকদের পথ ধরে মসজিদের মতো প্রতিষ্ঠান থেকে আয় রোজগারের ধান্ধা করছো! খোদার গজব...

তোমরা খালি নেগেটিভ চিন্তা কর। এই মসজিদের সামনে আমি একাই ভিক্ষা করুম অহন থেইক্কা। আগে তো বিশ-পঞ্চাশজনের সঙ্গে ফাইট দিয়া ভিক্ষা মাগতে হইতো। এখন আমার মসজিদের সামনে আমি একাই...অন্য কেউ এইহানে ভিক্ষার অনুমতি পাইবো না। বুঝ এইবার, আমার রোজগার আগের থেকে কতগুণ বাড়বে...

জবাব শুনে শুভাকাঙ্ক্ষীরা জ্ঞান হারালেন।

নিউজওয়ান২৪.কম/একে

ইত্যাদি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত