ঢাকা, ১৩ আগস্ট, ২০২০
সর্বশেষ:
সেহরি ও ইফতারের সময় সূচি : ঢাকায় প্রথম রোজার সেহরির শেষ সময় রাত ৪টা ৫ মিনিটে আর ইফতার হবে সন্ধ্যা ৬টা ২৮ মিনিটে। আইইডিসিআর এর করোনা কন্ট্রোল রুম (০১৭০০৭০৫৭৩৭) অথবা হটলাইন নম্বরে (০১৯৩৭১১০০১১, ০১৯৩৭০০০০১১, ০১৯২৭৭১১৭৮৪, ০১৯২৭৭১১৭৮৫, ০১৯৪৪৩৩৩২২২, ০১৫৫০০৬৪৯০১–০৫) যোগাযোগ করা যাবে। এ ছাড়া করোনাসংক্রান্ত তথ্য জানতে বা সহযোগিতা পেতে স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ এবং ৩৩৩ নম্বরে ফোন করা যাবে। অনলাইনে করোনা নিয়ে যোগাযোগ করতে আইইডিসিআরের ই-মেইল [email protected] এবং ফেসবুক পেজে (Iedcr,COVID19 Control Room) যোগাযোগ করা যাবে। জরুরি প্রয়োজনে কল করুন- ৯৯৯

ভারতের একমাত্র উর্দু বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪০% শিক্ষক উর্দু জানেন না!

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৩:৩১, ১৭ নভেম্বর ২০১৯  

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

ভারতের একমাত্র উর্দু বিশ্ববিদ্যালয়ের শতকরা ৪০ ভাগ শিক্ষক নিজেরাই উর্দু জানেন না। রবিবার এই সংবাদ দিয়েছে ভারতীয় হিন্দি সংবাদ মাধ্যম নবভারত টাইম্স.কম। এই প্রতিষ্ঠানটি হচ্ছে হাদারাবাদের মাওলানা আজাদ ন্যাশনাল উর্দু ইউনিভার্সিটি।  

এ প্রসঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষক হতাশ কণ্ঠে মিডিয়াকে জানান, বাস্তবে এই সংখ্যা আরো বেশি হবে। এদের মধ্যে কারো কারো কাছে আপনাকে চ্যালেঞ্জ জানানোর জন্য সার্টিফিকেট ঠিকই আছে, কিন্তু যদি দুই লাইন উর্দু লিখতে বলেন- তারা তাতে ব্যর্থ হবে। 

বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচালিত সার্টিফিকেট কোর্সের সিলেবাস দেখে আপনার মনে হতে পারে এটা নতুন ভর্তি হওয়অ শিক্ষার্থীদের জন্য নির্ধারণ করা হয়েছে। কিন্তু সত্য হচ্ছে উর্দু শিখানোর জন্য ছয় মাস মেয়াদী বুনিয়াদি এই কোর্স উর্দু বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদেরকেই উর্দু শিখানোর জন্য পরিচালিত।  এর কারণ হচ্ছে বিশাল ভারতের একমাত্র উর্দু বিশ্ববিদ্যালয়টির শিক্ষকদের মাঝে শতকরা ৫০ জনই উর্দু কিংবা উর্দু ভাষায় অন্য কোনো সাবজেক্টে পাঠদানে অক্ষম।

১৯৯৮ সালে স্থাপিত এই বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব ওয়েবসাইটে লেখা রয়েছে- উর্দাভাষাকে সমৃদ্ধকরণ ও এর বিকাশ ঘটানো, প্রচলিত ও বিশেষায়িত পদ্ধতিতে উর্দুর মাধ্যমে বৃত্তিমূলক ও প্রযুক্তিগত শিক্ষাদান আমাদের উদ্দেশ্য। কিন্তু সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এই উদ্দেশ্য নিয়ে যাত্রা শুরুর ২১ বছর পর আজও এর অবস্থা সেই প্রথম দিনকার মতোই আছে। একটি সূত্র জানায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য আসলাম পারভেজ স্বয়ং বলেছেন- উর্দুভাষার এই বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪০ ভাগ ফ্যাকাল্টি-ই উর্দু সক্ষম নয়।

উপাচার্যের বক্তব্যের জবাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য (চ্যান্সেলর) ফিরোজ বখত আহমেদ তার প্রতিক্রিয়ায় বলেন,  আমার কাছে উপাচার্যের এমন বক্তব্যের সমর্থনে কোনো তথ্য-উপাত্ত নেই। তবে তার এই কথা যদি সত্য হয়ে থাকে তবে বলতে হয় যে তিনি ভুল সময়ে সঠিক কথা বলছেন।
নিউজওয়ান২৪.কম/আরকে