News One24 logo
Sena Kalyan Sangstha
bangla fonts
৬ কার্তিক ১৪২৪, রবিবার ২২ অক্টোবর ২০১৭, ৮:৪৬ পূর্বাহ্ণ
facebook twitter google plus rss
ব্রেকিং নিউজ
ব্রাক্ষনবাড়িয়ায় ২৫ হাজার বৈদ্যুতিক সংযোগ সাময়িক বন্ধ নিম্নচাপে নৌ চলাচল বন্ধ তামিলনাড়ুতে ভবন ধসে নিহত ৮ আফগানিস্তানে ২ মসজিদে আত্মঘাতী হামলায় নিহত ৭২ শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি রুটে নৌযান চলাচল বন্ধ
সর্বশেষ খবর
‘মৃত্যু ছাড়া আমার আর কোনো পথ নেই’ সন্ত্রাস আঁকড়ে ধরলে ধর্ম থাকে না: দালাই লামা স্ত্রী’র পরকীয়ায় সাপ নিয়ে যা ঘটালেন স্বামী! এই ভালো এই খারাপ আনিসুল হকের অবস্থা যে শর্তে বিপিএল-ছাড়পত্র পাচ্ছেন পাকিস্তানি ক্রিকেটাররা

হিমালয় দেখিনি কিন্তু শেখ মুজিবকে দেখেছি: ক্যাস্ত্রো


২৬ নভেম্বর ২০১৬ শনিবার, ০২:১০  পিএম

সাক্ষাৎকার ডেস্ক


হিমালয় দেখিনি কিন্তু শেখ মুজিবকে দেখেছি: ক্যাস্ত্রো

বৈঠকে দুই নেতার বসার ভঙ্গিটাও ছিল যেন নিজেদের পারিবারিক গুরত্বপূর্ণ ইস্যু নিয়ে কথা বলছেন -ফাইল ফটো

আমি হিমালয় দেখিনি। কিন্তু আমি শেখ মুজিবকে দেখেছি। ব্যক্তিত্ব ও সাহসে তিনি হিমালয়। এই হিমালয়কে স্বচক্ষে দেখনেওয়ালাদের মধ্যে আমিও একজন।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের চৌম্বকীয় ব্যক্তিত্বে মুগ্ধ বিমোহিত যে ব্যক্তি এই কথাগুলো বলেছিলেন, কিউবা বিপ্লবের মহান নেতা সেই ফিদেল ক্যাস্ত্রো এখন অন্তিম শয়ানে।

বাংলাদেশে সময় শনিবার (২৬ নভেম্বর) তাঁর মৃত্যুর খবর দেয় দেশটির রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন।

১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে ক্যাস্ত্রো ছিলেন তাঁর দেশের প্রধানমন্ত্রী। তিনি আমাদের মুক্তিযুদ্ধে অকুণ্ঠ সমর্থন দিয়েছিলেন।

১৯৭৩ সালে আলজেরিয়ায় জোট নিরপেক্ষ সম্মেলনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও ক্যাস্ত্রোর সাক্ষাৎ হয়। দুই দিকপালের ওই মোলাকাতে ক্যাস্ত্রো আর বঙ্গবন্ধুকে মনে হচ্ছিল যেন দুই ভাই। বৈঠকে দুই নেতার পাশাপাশি বসার ভঙ্গিটাও ছিল যেন- অনেকদিন পর দেখা হওয়া দুই সহোদরের মতো।

আলোচনায় ক্যাস্ত্রো যারপরনাই মন্ত্রমুগ্ধ হয়ে যান বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মোহনীয় আবেশ সৃষ্টিকারী ব্যক্তিত্বে। বৈঠকের পর বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে ওপরের মন্তব্য করেন তিনি।

ওই বৈঠকে ক্যাস্ত্রো বঙ্গবন্ধুকে বিভিন্ন বিষয়ে পরামর্শ দেন। দেন কিছু সাবধানবাণীও। যেমন, ওই সম্মেলনে বঙ্গবন্ধুর দেওয়া ভাষণের একটি অংশ ছিল এরকম- পৃথিবী আজ ২ ভাগে বিভক্ত। এক ভাগে শোষক শ্রেণি আর আরেক ভাগে শোষিত শ্রেণি। আমি শোষিতের দলে।

বঙ্গবন্ধুর ভাষণ শেষে ক্যাস্ত্রো তাকে বলেন- তুমি আজ যে ভাষণ দিয়েছো... তারপর থেকে সাবধানে থেকো। আজ থেকে তোমাকে হত্যার জন্য একটি বুলেট তোমার পিছু নিয়েছে...

সম্মেলন শেষে দুই নেতা যার যার দেশে চলে যান। তবে সেই স্মরণীয় পরিচয়ের পর থেকে দুই নেতার মধ্যে গড়ে ওঠা আন্তরিক বোঝাপড়াটা দিনদিন মজবুত হতে থাকে।

এরপর ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট সপরিবারে বঙ্গবন্ধু নিহত হলে ফিদেল ক্যাস্ত্রো দুঃখ ভারাক্রান্ত মন নিয়ে বলেছিলেন, শেখ মুজিবের মৃত্যুতে বিশ্বের শোষিত মানুষ হারাল একজন মহান নেতাকে, আমি হারালাম একজন অকৃত্রিম বিশাল হৃদয়ের বন্ধুকে!
নিউজওয়ান২৪.কম/আরকে

নিউজওয়ান২৪.কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন: